কম্বোডিয়া কাজের বেতন কত ২০২৩

কম্বোডিয়া কাজের বেতন কত
কম্বোডিয়া কাজের বেতন কত

আজকে আমরা কথা বলব কম্বোডিয়া কাজের বেতন কত ২০২৩ এ বিষয়গুলো নিয়ে তাছাড়া জানতে পারবেন কম্বোডিয়াতে বর্তমানে কোন কাজের চাহিদা বেশি এবং কোন কাজগুলোতে আপনি বেতন বেশি পাবেন তা সমস্ত বিষয় নিয়েই আজকের মূল আলোচনা। বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে প্রচুর পরিমাণ শ্রমিক সেখানে কাজের উদ্দেশ্যে প্রতিনিয়ত পারি জমাচ্ছে তবে অনেকেই জানেনা সেখানে কাজের বেতন কত তাই আজকে মূলত এই বিষয়টি নিয়ে আপনাদেরকে জানাবো।

কম্বোডিয়াতে দীর্ঘদিন যাবত বাংলাদেশী মানুষজন গার্মেন্টস শ্রমিক হিসাবে অথবা নরমাল ওয়ার্কার কর্মী হিসেবে অনেকেই সেখানে পাড়ি জমাচ্ছে। অন্যান্য দেশের মতো এখানেও ভালো পরিমান বেতন পাওয়া তাছাড়াও আরো অনেক ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যায় এক্ষেত্রে কত টাকা পর্যন্ত বেতন পাওয়া যায় তা এই বিষয়গুলো নিয়ে অনেকেই বিস্তারিত ভাবে জানেনা তাই চলুন দেখে নেওয়া যাক এ বিষয়গুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা তার আগে কয়েকটি মূল্যবান বিষয় জেনে নেওয়া যাক।

কম্বোডিয়াতে যাওয়ার জন্য কিন্তু আপনাকে তেমন কোন সমস্যার মধ্যে পড়তে হবে না আপনি যেকোনো একটি ভাল কাজের উপর দক্ষতা অর্জন করেই কম্বোডিয়াতে গিয়ে ভালো বেতনে কাজ করতে পারবেন এক্ষেত্রে অনেকেই আছে যারা একেবারেই কাজ পারেনা তাদের ক্ষেত্রে কিন্তু কম্বোডিয়াতে গিয়ে কাজ করা অনেকটাই কঠিন হবে তাই অবশ্যই আপনাদের উচিত কম্বোডিয়াতে যাওয়ার আগে যে কোন একটি কাজের উপর ভালো মতো অভিজ্ঞতা অর্জন করা।

দেরি না করে দেখে নেওয়া যাক কম্বোডিয়া কাজের বেতন সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য এখানে মূলত পর্যায়ক্রমে আমরা কয়েকটি কাজ নিয়ে আলোচনা করব যে কাজগুলোতে বেতন বেশি পাওয়া যায় এবং সুযোগ সুবিধা বেশি থাকে তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক প্রথম অবস্থায় কম্পিউটারে কাজের বেতন কত এই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা।

কম্বোডিয়া কাজের বেতন

কম্বোডিয়া তে একজন কর্মীর মাসিক এভারেজ বেতন ২ লাখ ১৪ হাজার টাকা। কম্বোডিয়াতে কাজের বেতন মূলত নির্ভর করে নির্দিষ্ট কাজের উপর ভালো মানের কাজের বেতন ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার উপরেই হয়ে থাকে। তবে গার্মেন্টস কর্মী হিসেবে যদি আপনি কম্বোডিয়াতে কাজ করেন তাহলে মাসিক বেতন ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা থেকে 2 লক্ষ টাকা পর্যন্ত বেতন পাওয়া যাবে।

কম্বোডিয়াতে একজন কর্মী ওভারটাইমসহ মাসিক বেতন তুলতে পারবে দুই লক্ষ ১৪ হাজার টাকা পর্যন্ত। এটি নির্ভর করে আপনার কাজের উপর আপনি যদি আরো ভালো মানের কাজ করে থাকেন তাহলে আরো ভালো পরিমাণ বেতন তোলা সম্ভব হবে। তবে বর্তমান সময়ে ডলার রেট বেশি হওয়ার কারণেই আরো বেশি পরিমাণ বেতন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে এবং কম্বোডিয়াতে কাজের বেতনের নতুন সূচি প্রকাশ করা হয়েছে যেখানে কর্মীদের বেতন অনেকাংশেই বৃদ্ধি পেয়েছে।

আরো পড়ুনঃ  দুবাই সিকিউরিটি গার্ড কোম্পানি ২০২৩

তাছাড়া রেস্টুরেন্ট কর্মী হিসেবে বা অন্যান্য কর্মী হিসেবেও কিন্তু বর্তমানে কম্বোডিয়াতে কাজের বেতন বেশি। একজন রেস্টুরেন্ট কর্মীর বেতন ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে আরো বেশি পরিমাণ পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে অনেক কর্মী রয়েছে যারা কিনা গার্মেন্টস সেক্টরে কাজ করছে এবং বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট এবং ওয়ার্কশপ গুলোতে কাজ করছে।

কম্বোডিয়াতে কয়েক ধরনের কাজের তালিকা রয়েছে তার মধ্যে সবথেকে উল্লেখযোগ্য গার্মেন্টস কর্মীরাই বর্তমানে বেশি কাজে নিয়োজিত আছে। বাংলাদেশ থেকে যারা কম্বোডিয়াতে যাচ্ছে তারা সাধারণত গার্মেন্টস শ্রমিক হিসেবে অনেকে যাচ্ছে আবার অনেকেই এর আগে থেকেই সেখানে বিভিন্ন কাজের নিয়োজিত আছে সেই সাথে ফ্যাক্টরি কাজ সহ আরো অনেক কাজ রয়েছে পর্যায়ক্রমে আমরা কোন কাজে বেতন কত তা বিস্তারিতভাবে নিচে তুলে ধরলাম।

কম্বোডিয়া বিভিন্ন কাজের বেতনের তালিকা

কম্বোডিয়াতে কাজের নামকম্বোডিয়া কাজের বেতন
গার্মেন্টস কর্মী১ লক্ষ ৫০ হাজার
ইলেকট্রিশিয়ান১ লক্ষ ৭০ হাজার
ফ্যাক্টরি ওয়ার্কারএক লক্ষ ৪০ হাজার
রেস্টুরেন্ট কর্মীএক লক্ষ ৭০ হাজার
ক্লিনার কর্মী১ লক্ষ ৩০ হাজার
অফিস কর্মী১ লক্ষ ৫০ হাজার
কনস্ট্রাকশন কর্মী১ লক্ষ ৭০ হাজার
সিকিউরিটি গার্ড১ লক্ষ ৬০ হাজার
ফুড প্যাকেজিংএক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার

আপনি যদি কোনো ভালো কোম্পানির মাধ্যমে কম্বোডিয়াতে কাজ করেন তাহলে কিন্তু আরো ভালো পরিমাণে বেতন পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে সেক্ষেত্রে আপনি যখন কম্বোডিয়াতে বিভিন্ন কাজ নিয়ে যাবেন তখন আপনার কোম্পানির মাধ্যমে বিস্তারিতভাবে এ বিষয়টি জেনে নিবেন। কম্বোডিয়াতে যাওয়ার পরে কিন্তু যে কোম্পানিতে আপনি কাজ করবেন সেই কোম্পানিতে বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা প্রদান করা হয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃ  বাহরাইন ভিজিট ভিসা ২০২৩-বাহরাইন ভিজিট ভিসা খরচ

এক্ষেত্রে আপনাদের আরো বিষয়গুলো জেনে নেওয়া উচিত যে কম্বোডিয়াতে কিন্তু বিভিন্ন কোম্পানি রয়েছে যারা কিন্তু থাকা খাওয়ার সুবিধা সহ আরো বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে থাকে এক্ষেত্রে আপনার বেতন বোনাস সহ আরো কয়েকটি বিষয়ে ভালোমতো লক্ষ্য রাখবেন অনেক কোম্পানি আছে যারা কিনা এই সমস্ত সুযোগ-সুবিধা বহন করে থাকে।

কম্বোডিয়া কোন কাজে বেতন বেশি

কম্বোডিয়াতে সবথেকে ইলেকট্রিক কাজের বেতন বেশি। কম্বোডিয়াতে একজন ইলেকট্রিক কর্মীর বেতন প্রায়ই ২ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা থেকে আরও বেশি পরিমাণে বেতন পাই। কম্বোডিয়াতে যদি একজন ইলেকট্রিক কর্মী হিসেবে কাজ করলে মাসিক 2 লক্ষ টাকা থেকে আরো বেশি পরিমাণ বেতন পাবেন। তবে এক্ষেত্রে ওভারটাইমসহ যদি আরো বেশি পরিমাণ কাজ করার সুযোগ পাওয়া যায় তাহলে বেশি পরিমাণ বেতন তোলার সম্ভাবনা থাকে।

কম্বোডিয়াতে বর্তমানে ইলেকট্রিক কাজের চাহিদা ও বেশি এক্ষেত্রে বলা যায় যে কম্বোডিয়াতে যে কাজের চাহিদা বেশি সেই কাজের বেতন তুলনামূলকভাবে বেশি হয়ে থাকে। তবে কম্বোডিয়াতে ইলেকট্রিক কর্মী হিসেবে কাজ করার জন্য অবশ্যই পূর্ব অভিজ্ঞতা জরুরি সেই সাথে আপনাকে অবশ্যই এই কাজের উপর দক্ষতা অর্জন করে বিভিন্ন কোম্পানির অধীনে কাজ করতে হবে চাইলে আপনি নিজেও কিন্তু কম্বোডিয়াতে ইলেকট্রিক কর্মী হিসেবে কাজ করতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ  কানাডা কাজের ভিসা ২০২৩, কানাডা ওয়ার্ক পারমিট প্রসেসিং

ইলেকট্রিক কর্মী হিসেবে কাজ করার জন্য প্রয়োজনে আরো কিছু দক্ষতার প্রয়োজন আছে সে সংক্রান্ত তথ্যগুলো আরও জানার জন্য আমাদের দেওয়া এই লিংক থেকে খুব সহজে পড়ে নিতে পারবেন তাহলে চলুন পর্যায়ক্রমে দেখে নেওয়া যাক আসলে কোন কাজের চাহিদা বেশি কম্বোডিয়াতে কোন কাজের চাহিদা বেশি জানতে হলে এখনই পড়ুন

কম্বোডিয়া সর্বোচ্চ কাজের বেতন কত

কম্বোডিয়াতে একজন কর্মী সর্বোচ্চ বেতন ধরা হয় ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত। মূলত কম্বোডিয়াতে আপনি কি ধরনের কাজ করছেন তার উপর নির্ভর করে মূলত কম্বোডিয়ান কাজের বেতন নির্ধারিত হয়ে থাকে তবে এক্ষেত্রে যদি আপনি ভালো মানের কাজ করে থাকেন উচ্চ পর্যায়ের কাজগুলো করে থাকেন তাহলে কিন্তু আরো ভালো পরিমাণ বেতন পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

কম্বোডিয়াতে সাপ্তাহিকভাবে আপনি বিভিন্ন ঘণ্টা অনুযায়ী কাজ করার সুযোগ পাবেন এক্ষেত্রে আবার অনেক কোম্পানি আছে যারা কিন্তু মাসিক চুক্তিতে আপনাকে নিয়োগ দিতে পারে এক্ষেত্রে কিন্তু ভিন্ন ভিন্ন বেতন প্রদান করা হয়ে থাকে। তবে কোন কাজে কত বেতন তা উপরে বিস্তারিত ভাবে আমরা লিস্টে তুলে ধরেছি।

কম্বোডিয়া সর্বনিম্ন বেতন কত

কম্বোডিয়া একজন কর্মীর সর্বনিম্ন বেতন ৬৫ হাজার টাকা। তবে এক্ষেত্রে নির্ভর করে আপনি কত ঘন্টা ডিউটি করছেন মূলত কম্বোডিয়ার নিয়ম অনুযায়ী সর্বনিম্ন বেতন এটি ধরা হয়ে থাকে তবে নির্ভর করে আপনি কত ঘন্টা সেখানে কাজ করছেন। এবং কাজের কোয়ালিটি এবং কাজের সময়ের উপর মূলত কম্বোডিয়ান বেতন নির্ভর করে।

আরো পড়ুনঃ  কুয়েত ভিসা চেক-পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক

তবে ভালো অভিজ্ঞ হলে সব থেকে ভালো পরিমাণ বেতন বেশি পাওয়া যায় কম্বোডিয়াতে অভিজ্ঞ কর্মীদের চাহিদা বেশি থাকে তাই চেষ্টা করবেন অভিজ্ঞতা অর্জন করে কম্বোডিয়াতে কাজে যাওয়ার।

আজকে আমরা আলোচনা করেছি কম্বোডিয়া কাজের বেতন কত এবং কম্বোডিয়া সর্বনিম্ন কাজের বেতন কত। কম্বোডিয়াতে যাওয়ার আগে আপনাকে এ বিষয়গুলো অবশ্যই জেনে নেওয়া উচিত। কোন কাজে কত বেতন এবং কম্বোডিয়াতে কাজের সুযোগ সুবিধা কেমন প্রদান করা হয় তা বিস্তারিতভাবে এইখানে আমরা তুলে ধরেছি

কবডিয়া কাজের বেতনকোম্পানির কাজ
কাজের স্থানকম্বোডিয়া
কাজের সময়দশ ঘন্টা
সুযোগ-সুবিধাকোম্পানি নিজের
কম্বোডিয়া টাকার মান কত

কম্বোডিয়া টাকার মান কত

কম্বডিয়ান 1 রিয়াল সমান বাংলাদেশি টাকা 0.026 হয়। কম্বোডিয়ান ১০০ রিয়াল সমান বাংলাদেশি ২ টাকা ৬২ পয়সা হয়। আগের তুলনায় কম্বোডিয়ান রিয়ালের মূল্য কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই বর্তমানে কম্বোডিয়ান রিয়ালে যদি আপনারা কাজ করে থাকেন অনলাইনের মাধ্যমে তা যাচাই-বাছাই করে বেতন নিতে পারবেন। এবং বর্তমানে অনলাইনের মাধ্যমে কিন্তু কম্বোডিয়ান রিয়ালের বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যায়।

আরো পড়ুনঃ  অস্ট্রেলিয়া স্পন্সর ভিসা-অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার উপায়

কম্বোডিয়া ১ টাকা বাংলাদেশের কত টাকা

কম্বোডিয়ান ১ টাকা সমান বাংলাদেশী ০.২৬ পয়সা। কম্বোডিয়ান টাকাকে কম্বোডিয়ান রিয়েল বলা হয়। কম্বোডিয়ান রিয়াল এর মান যেকোন সময় পরিবর্তন হয়ে থাকে এক্ষেত্রে দিনের বিভিন্ন সময় এবং মাসের বিভিন্ন সময় কম্বোডিয়ান রিয়ালের মূল্য উঠানামা করে।

কম্বোডিয়া এক টাকার মান কত

কম্বোডিয়ার এক টাকা সমান বাংলাদেশি ২৬ পয়সা হয়।

কম্বোডিয়াতে কাজের ভিসা বেতন কত

কম্বোডিয়াতে যদি কেউ কাজের ভিসা নিয়ে যায় তাহলে বেতন ৬৫ হাজার থেকে ১ লক্ষ ৬৫ হাজার পর্যন্ত বেতন তুলতে পারবে ওভারটাইমসহ বিভিন্ন সময়ে কাজ করে।

কম্বোডিয়াতে সবথেকে বেতন বেশি কাজ

কম্বোডিয়াতে সবথেকে বেতন বেশি ইলেকট্রিক কাজের সেই সাথে যদি IT রিলেটেড কাজগুলোতে নিয়োজিত থাকতে পারেন তাহলে আরো ভালো পরিমান বেতন পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *