কাতারে কোন কাজের চাহিদা বেশি ( ২৫ টি সহজ কাজ )

কাতারে কোন কাজের চাহিদা বেশি
কাতারে কোন কাজের চাহিদা বেশি

কাতারের কাজের চাহিদা কেমন সে সম্পর্কে জানার আগ্রহ বাঙালিদের মধ্যে প্রবল, তাই আমরা কাতার কোন ধরনের কাজগুলো বেশি এবং কোন কাজগুলোতে চাহিদা অনেক বেশি সে সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করব আজকের এই কন্টেন্টের মাধ্যমে। আজকের এই কনটেন্টের মাধ্যমে আপনার স্বপ্নের দেশের কাজগুলোর চাহিদা সম্পর্কে জানতে পারবেন। আমরা খুবই শৃঙ্খলাবদ্ধ ভাবে জানানোর চেষ্টা করব যে কাতারে কোন ধরনের কাজগুলোর বেশি চাহিদা এবং কেন এই কাজগুলোর বেশি চাহিদা হয় কাতারে। তাহলে আসুন আমরা জেনে নেই কোন কাজগুলোর থেকে বেশি চাহিদা রয়েছে কাতারে।

কাতারে কোন কাজের চাহিদা বেশি

কাতারে সাধারণভাবে শ্রমিক পেশায় কাজের চাহিদা সবথেকে বেশি। যদিও শ্রমিকদের মধ্যে অনেক রকমের প্রকারভেদ রয়েছে। যেমন শ্রমিকদের মধ্যে ডাইভার, ক্লিনার, সেফ, ইত্যাদি রয়েছে। অপরদিকে ডাক্তার, আইটি সেক্টর, প্রকৌশলী, এসকল খাতে কাতারে বাংলাদেশের  চাহিদা একটু কম। এছাড়াও বাংলাদেশের মধ্যে আরেকটি কাজের অনেক চাহিদা রয়েছে সেটি হল ইমাম এবং মোয়াজ্জেম। বাংলাদেশ মুসলিম  দেশ হওয়ার কারণে এ কাজগুলোর প্রতি অনেক বেশি চাহিদা।

তাই আপনি যদি আপনার স্বপ্নের দেশ হিসেবে কাতারকে নির্বাচন করে থাকেন তাহলে অবশ্যই ভিসার জন্য আপনাকে আবেদন করতে হবে। ডাক্তার এবং আইটি সেক্টরের কাজের জন্য আপনাকে কাতার দেশটির বিকল্প হিসেবে রাখতে হবে। কারণ ডাক্তার এবং আইটি সেক্টরে কাজের চাহিদা তুলনামূলক একটু কম।

কাতারে ড্রাইভিং কাজের চাহিদা

কাতারে যে কাজগুলো সব থেকে বেশি চাহিদা হয়েছে সেগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হল ড্রাইভিং। এ কাতার দেশটি অনেক বেশি বৃহৎ এবং সর্বোচ্চ উন্নত হওয়ার কারণে এখানকার সরকার ড্রাইভিং সেক্টরকে অনেক উন্নত করার ব্যাপারে বেশ সচেতন। তাই কাতার প্রতিবছর বিপুল সংখ্যক ড্রাইভিং ভিসায় শ্রমিক নিয়ে থাকে। তবে এক্ষেত্রে লক্ষ্যনীয় বিষয় যে কাতারের ড্রাইভিং কাজ করতে হলে আপনাকে অবশ্যই সর্বোচ্চ দক্ষ হতে হবে। স্বাভাবিক ড্রাইভিং করে আপনি কখনোই ড্রাইভিং করতে পারবেন না। কারণ সেখানেও রয়েছে অনেক বিপদজনক কিছু জায়গা যেখানে গেলে আপনি বিপদে পড়ে যাবেন। তাই অবশ্যই দক্ষ এবং অভিজ্ঞতা সম্পন্ন হলেই কাতারে ড্রাইভিং ভিসায় যাবেন।

আরো পড়ুনঃ  ওমান ভিসা চেক অনলাইন- পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে ওমান ভিসা চেক
কাতারে কোন কাজের চাহিদা বেশি
কাতারে

কাতারে কোম্পানির কাজের চাহিদা কেমন

আপনি কোন কাজ করতে গেলে সেখানে অবশ্যই যে কোন একটি কোম্পানির মাধ্যমে করতে হবে। কোম্পানি ছাড়া বাকি যে কাজগুলো রয়েছে সেগুলোর সংখ্যা খুবই কম। যদিও কোম্পানির মধ্যে অনেক ধরনের অনেক রকমের কাজ রয়েছে। তাই বলা যায় সকল কাজকে পেছনে ফেলে প্রথম সারিতে অবস্থান করছে কোম্পানি। তবে কোম্পানিতে কাজ করলে বেশ কিছু বিষয়ের উপর সচেতন থাকতে হয়। যদি সচেতন না থাকেন তাহলে যেকোনো সময় আপনি প্রতারণা শিকার হয়ে যাবেন। কারণ যে কাজগুলোতে সবথেকে বেশি চাহিদা থাকে প্রতারকদের ফাঁদ সেখানেই। তাই অবশ্যই প্রতারক এবং দালালদের থেকে সাবধানতা অবলম্বন করবেন।

কাতারে মসজিদ ক্লিনার কাজের চাহিদা কেমন

কাতারে মসজিদ ক্লিনার কাজের চাহিদা রয়েছে প্রচুর। দেশটিতে যতগুলো মসজিদ শ্রমিক রয়েছে তার অধিকাংশই বাঙালি। কারণ বাঙালি মানুষদেরকে তারা খুবই শ্রদ্ধা এবং সম্মানের সহিত কাজ করায়। এবং সেখানে অবস্থিত বাঙালিরাও খুবই নিরাপদ ভাবে জীবন যাপন করে। কাতারে বাঙ্গালীদেরকে নানা রকম কাজের জন্যই তারা সুযোগ দেয় ঠিক তেমনি মসজিদ এবং ইমামদের জন্য অনেক বেশি পরিমাণে সুযোগ দেওয়া হয়।

আরো পড়ুনঃ  অস্ট্রেলিয়া লেবার ভিসা | অস্ট্রেলিয়ার লেবার ভিসা আবেদন

কাতারে ফ্যাক্টরিতে কাজের চাহিদা

কাতারে বিপুল সংখ্যক ফ্যাক্টরি রয়েছে। এ সকল ফ্যাক্টরিগুলোতে কাজ একটু বিপজ্জনক হলেও প্রচুর চাহিদা। কারণ অন্যান্য কাজের তুলনায় ফ্যাক্টরিতে কাজ করে অনেক বেশি মুনাফা আয় করা যায়। যারা একটু দক্ষ এবং এ ধরনের কাজ করতে একটু অভিজ্ঞ হয়ে গেছে তাদের জন্য কাজটি অতি কষ্টকর মনে হয় না। তবে যারা নতুন সময় ফ্যাক্টরিতে কাজ নিবেন তাদের জন্য একটু কষ্টকর হবে। তবে ছয় থেকে এক বছরের মধ্যে আপনিও যখন অভিজ্ঞ হয়ে যাবেন তখন আর তেমন কষ্ট হবে না। কাতারে ফ্যাক্টরি কাজে গেলে অবশ্যই সরকারি ভিসা যাবেন। কারণ ফ্যাক্টরিতে কাজ দেয়ার কথা বলে বেসরকারিভাবে অনেক দালালচক্র ফাঁদ পেতে বসে থাকে।

কাতারে কোন কাজের চাহিদা বেশি তার লিস্ট

কাতারে অনেক রকম কাজে রয়েছে যে সকল কাজগুলোর চাহিদা অন্যান্য কাজের তুলনায় অনেক বেশি। যে সকল কাজগুলোর চাহিদা বেশি থাকে সেই সকল কাজগুলো করার জন্য বিভিন্ন দেশ থেকে বেশি পরিমাণ মানুষ যেতে আগ্রহী হয়ে থাকেন। যে সকল কাজগুলোর চাহিদা অনেক বেশি তা আমরা নিচে টেবিল এর সাহায্যে তুলে ধরলাম।

ড্রাইভিং
হোটেল
সেফ
ক্লিনার
রেস্টুরেন্ট
ইলেকট্রনিক
ফ্যাক্টরির কাজ
লেবার
টাইলস্
মেকানিক্যাল
ফায়ার সার্ভিস

আরো অন্যান্য কাজের ও কাতারে চাহিদা রয়েছে অনেক বেশি। আমরা কয়েকটি কাজ সম্পর্কে টেবিলে উল্লেখ করেছি। এগুলা বাদে ও আরো অনেক কাজে রয়েছে। কাতারের অনেক বাঙালি কাজের জন্য যে বিভিন্ন রকম কাজ করে থাকেন তার মধ্যে আমরা কয়েকটি কাজ তুলে ধরলাম।

কাতার ইলেকট্রনিক কাজের চাহিদা

অন্যান্য কাজের মত কাতারে ইলেকট্রিক কাজের চাহিদা তেমন নেই। কাতারে অন্যান্য কাজগুলোর যেমন চাহিদা রয়েছে সেই তুলনায় ইলেকট্রনিক কাজের চাহিদা একটু কম। ইলেকট্রনিক কাজের  জন্য কাতারে আশাটাই সব থেকে বেশি ভালো। এছাড়া অন্যান্য দেশের তুলনায় কাতারে ইলেকট্রনিক কাজের বেতন তুলনামূলকভাবে কম। তবে যদি আপনার ইলেকট্রনিক কাজের প্রতি দক্ষতা বেশ ভালো থাকে তাহলে আপনি সরকারি ভিসায় নিয়োগ প্রাপ্ত হয়ে কাতারে আসতে পারে। সরকারি ভিসা যদি ইলেকট্রনিক কাজের জন্য কাতারে আসতে পারেন সে ক্ষেত্রে আপনার জন্য খুবই ভালো হবে।

কাতারে মাদ্রাসা ক্লিনিং কাজের চাহিদা

কাতারে মসজিদ মাদ্রাসার ব্যাপারে কাতার সরকার বেশি সচেতন । কাতারের প্রতিটা মসজিদ মাদ্রাসা এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো খুবই উন্নত এবং চোখে পরার মত। কারণ এখানকার ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো খুবই যত্ন করা হয়। এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলো যত্ন করার জন্য প্রচুর পরিমাণে শ্রমিক নেওয়া হয়। তবে সকল কাজের জন্য বাঙ্গালীদের কে বেশি নেওয়া হয়। তাই মাদ্রাসা মসজিদ ক্লিন করার জন্য বিপুল পরিমাণ কাজ রয়েছে কাতারে।

আরো পড়ুনঃ  প্রবাসী কর্মীদের ফ্যামিলি ভিসায় গমনকারীদের বিএমইটি কতৃক অনাপত্তি সনদপত্র (NOC) প্রয়োজন নেই

কাতারে ইমাম এর চাহিদা

কাতার একটি মুসলিম দেশ হওয়ার কারণে এখানে ইমাম এর চাহিদা রয়েছে। এবং বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে বিপুল পরিমাণে মানুষ সেখানে গিয়ে ইমাম পেশায় নিয়োজিত আছেন। বাঙালি ইমামদেরকে তারা খুবই সম্মান এবং শ্রদ্ধা করে। কাতারে বাঙালি ইমামদের প্রচণ্ড চাহিদা। শুধু কাতার নয় বাঙালি ইমামদের মধ্যপ্রাচ্যে এবং ইউরোপের প্রতিটি দেশেই ব্যাপক ধরনের চাহিদা রয়েছে। এবং অন্যান্য দেশের তুলনায় কাতারে ইমামদের হাদিয়া অনেক বেশি টাকা দেওয়া হয়। তাই আপনি কাতারে ইমাম ভিসায় যেকোনো সময় যেতে পারবেন এবং খুব আনন্দে জীবন যাপন করতে পারবেন।

কাতারে বাসা বাড়িতে কাজের চাহিদা

কাতারে বাসা বাড়িতে চাহিদা রয়েছে তবে অতিরিক্ত কোন চাহিদা নেই বাসা বাড়িতে কাজ করানোর জন্য। বিশেষভাবে কিছু মানুষ রয়েছে যারা বাসার বাড়িতে কাজ করায়। বাসা বাড়িতে কাজ করতে হলে আপনাকে সৌদি আরব যেতে হবে সেখানে বাসা বাড়িতে কাজের সবথেকে চাহিদা বেশি। কাতারে বাসা বাড়িতে কাজ পাবেন তবে সে ক্ষেত্রে বেতন কিছুটা কম হবে। এবং আরো একটি লক্ষ্য নিয়ে বিষয় হলো যারা বাসা বাড়িতে কাজ করবেন তাদের অনেকেই নির্যাতিত শারীরিকভাবে। এক্ষেত্রে পাশাবাড়িতে কাজ না করাটাই  উত্তম। তবে সরকারি বোয়েসের ক্ষেত্রে এজেন্সি গুলোর মাধ্যমে যদি বাসা বাড়িতে কাজ পান সে ক্ষেত্রে খুবই ভালো হবে।

আরো পড়ুনঃ  সৌদি আরবের বিমান চলাচলের খবর

কাতারে তেল পাম্পে কা কাজেজের চাহিদা

কাতারে তেল পাম্পের কাজের চাহিদা অন্য সব কাজকে ছাড়িয়ে গিয়েছে। কারণ কাতার হলে তেল নির্ভর দেশ। কাতারের সম্পদের সিংহ বাঘ আসে তেল থেকে। তবে বাঙ্গালীদের জন্য তেল পাম্পে কাজ করা একটু হলেও বিপদজনক। তবে যারা একটু দক্ষ এবং অভিজ্ঞ হয়ে যান তাদের জন্য ব্যাপারটা স্বাভাবিক। কাতারে তেল পাম্পের কাজ বাবার জন্য খুব বেশি পরিশ্রম করার প্রয়োজন নেই। কাতারের সবচেয়ে বেশি কাজ থাকে এই সেক্টরে। যদিও তেল পাম্প এর কাজের মধ্যেও নানান রকমের প্রকারভেদ রয়েছে তবুও এই কাজটিতে আপনি বিপুল পরিমাণ টাকা উপার্জন করতে পারবেন।

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *