কুয়েত কোম্পানি ভিসা বেতন কত-কুয়েতে সর্বনিম্ন বেতন কত

কুয়েত কোম্পানি ভিসা বেতন কত
কুয়েত কোম্পানি ভিসা বেতন কত

কুয়েত কোম্পানি ভিসায় কাজের বেতন কত এ সম্পর্কে অনেকেই জানতে আগ্রহী।আজকের এই কনটেন্টে আমরা আপনাদের সঙ্গে কুয়েতের সব রকম কাজের বেতন সম্পর্কে আলোচনা করব। যেমন, কুয়েত কোম্পানি ভিসার বেতন কত, কুয়েতের সর্বনিম্ন বেতন কত, শ্রমিকদের বেতন কত, বেতন কত, বিভিন্ন কোম্পানির তালিকা, কুয়েতে খাদেমদের বেতন কত ইত্যাদির সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য আলোচনা করব। চলুন জেনে নেওয়া যাক সেই সকল তথ্য সম্পর্কে।

কুয়েত সর্বনিম্ন বেতন কত

কুয়েতে সর্বনিম্ন বেতন হলো ৬০ দিনার। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২০ হাজার টাকা। কুয়েতের সর্বনিম্ন বেতনটি কুয়েত সরকার কর্তৃক নির্ধারিত। এর নিচে কুয়েতে কোন শ্রমিককে বেতন দেওয়া হয় না। তবে কুয়েতে একজন শ্রমিক ৫০ থেকে ৭০ হাজার টাকা অনায়াসে ইনকাম করতে পারেন। কাজের উপর নির্ভর করে বেতন কম বেশি হয়ে থাকে।

বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিভিন্ন রকম বেতন দেওয়া হয়ে থাকে। একজন শ্রমিক কত ঘন্টা কাজ করে এবং ওভারটাইম কতটুকু সময় করে এই সকল বিষয় নির্ভর করে শ্রমিকদের বেতন দেওয়া হয়ে থাকে। যে যত বেশি কাজ করবে এবং যত বেশি দক্ষ হবে তার বেতন অন্যদের তুলনায় তত বেশি থাকবে।

কুয়েতে শ্রমিকদের বেতন কত

কুয়েতে শ্রমিকদের বেতন হয়ে থাকে প্রায় ৪০ থেকে ৬০ হাজার টাকা বাংলাদেশী মুদ্রায়। কাজের উপর নির্ভর করে শ্রমিকদের বেতন কম বেশি হয়ে থাকে। কুয়েতে যারা মূল কাজের পাশাপাশি ওভারটাইম করে থাকে মূলত তারা ৬০ হাজার এর মত বেতন পেয়ে থাকে। সকল খরচ বাদ দিয়ে একজন শ্রমিক মাসে ৫০,০০০ প্লাস টাকা জমাতে পারবে।

যারা বাংলাদেশ থেকে কুয়েতে কাজ করার জন্য যেতে চান তারা সকলেই জানতে চান কুয়েতে শ্রমিকদের বেতন সম্পর্কে। কেননা, আপনারা সেখানে গিয়ে এমন ধরনেরই কাজ করবেন সেই কারণে। যেহেতু অর্থ উপার্জন করার জন্য অন্য দেশে পাড়ি জমান সুতরাং যে দেশে যাবেন সে দেশে যাবার পূর্বে বেতন সম্পর্কে জানা টা জরুরী।

আরো পড়ুনঃ  অস্ট্রেলিয়াতে কোন কাজের চাহিদা বেশি | অস্ট্রেলিয়া বেতন কত

কুয়েত কোম্পানি ভিসা বেতন কত

কুয়েতে কোম্পানি ভিসা তে বেতন পাওয়া যায় ৪৫ হাজার টাকা থেকে শুরু করে এক লক্ষ বিশ হাজার টাকা পর্যন্ত। নতুন অবস্থায় কুয়েতের কোন কোম্পানিতে জয়েনিং বেতন হিসেবে ৪৫ হাজার টাকা থেকে শুরু হয়ে থাকে। পরবর্তীতে অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে এবং প্রত্যেক বছর কর্মীদের বেতন বাড়িয়ে থাকে কুয়েতের বিভিন্ন কোম্পানিগুলো। তাই বলা যায় কুয়েতে একজন কোম্পানি কর্মীর বেতন ৪৫ হাজার টাকা থেকে শুরু করে এক লক্ষ বিশ হাজার টাকা প্লাস হয়ে থাকে।

তবে এই সমস্ত কোম্পানিগুলোতে কাজের উপর ডিপেন্ড করে এবং দক্ষতার উপর যাচাই-বাছাই করেই বেতন বৃদ্ধি করা হয়ে থাকে। এবং সেই সাথে সমস্ত কোম্পানিগুলোতে প্রয়োজনীয় যে সমস্ত রিকোয়ারমেন্ট গুলো দেওয়া আছে সেই অনুযায়ী যদি সে কাজে নিয়োজিত থাকে তাহলে পরবর্তীতে বেতন বোনাস সহ যাতায়াত খরচ এবং থাকা খাওয়ার ব্যবস্থাও কোম্পানি নিজেই বহন করে থাকে। তাই অবশ্যই আপনি যে কোম্পানির মাধ্যমে যাবেন সেই কোম্পানির সম্পর্কে বিস্তারিত ভালো মতো জেনে তারপরে কুয়েতের বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ নিবেন।

আরো পড়ুনঃ  মাল্টা কাজের ভিসা ২০২৩ ( নতুন নিয়োগ )

কুয়েতে বেসিক বেতন কত

কুয়েতে বেসিক বেতন প্রায় ৩০ হাজার টাকা হয়ে থাকে বা এর আশেপাশে। সিঙ্গল ডিউটির জন্য একরকম বেতন দেওয়া হয়ে থাকে এবং ডাবল ডিউটির জন্য অন্য রকম বেতন দেওয়া হয়ে থাকে। যারা ৮ ঘন্টা ডিউটি করেন তারা প্রায় ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা আয় করে থাকেন। যারা ১২ ঘণ্টা ডিউটি করে থাকেন তারা ৩৫ থেকে ৪০ হাজার টাকা আয় করেন। বিভিন্ন কাজের ক্ষেত্রে বিভিন্ন রকম বেতন দিয়ে থাকে কুয়েত কোম্পানিগুলো।

কুয়েতে বিভিন্ন কোম্পানির বেতনের তালিকা

কুয়েতের বিভিন্ন কোম্পানির তালিকা আপনারা অনেকেই জানতে চান। চলুন আমরা জেনে আসি কুয়েতের বিভিন্ন কোম্পানির তালিকা গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। যা নিচে আলোচনা করা হলো।

কুয়েত কোম্পানির তালিকাবেতন
আল আব্রাক কোম্পানি৪০,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
আল ফয়সাল৪৫,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
ন্যাশনাল কোম্পানি৪০,০০০ থেকে ৭০,০০০ +
আল জাজিরা কোম্পানি৪০,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
আব্দুল হামিদ কোম্পানি৪০,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
মাজেদ আল আহলে কোম্পানি২৮,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
ইউ এফ এম কোম্পানি৩০,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
ডিসাইড কোম্পানি৪০,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
তানজিকম কোম্পানি৩০,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
কেওসি কোম্পানি৪০,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
ডায়ানা কোম্পানি৩৫,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
আল মার্ককো কোম্পানি৩০,০০০ থেকে ৬০,০০০ +
আরো পড়ুনঃ  দুবাই রেসিডেন্স ভিসা-দুবাই রেসিডেন্স ভিসা খরচ

আরো অনেক কোম্পানির রয়েছে কুয়েতে কাজ করার জন্য। আজকে আমরা আপনাদের সঙ্গে এই কয়েকটি কোম্পানি নিয়ে আলোচনা করলাম। আরো বিস্তারিত আলোচনা জানতে আমাদের সঙ্গে থাকুন আমাদের অন্য কনটেন্টে কুয়েত সম্পর্কে আরো বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। কুয়েত সম্পর্কে আরো তথ্য আমার নিচে উল্লেখ করেছি আপনারা দেখে নিতে পারেন।

কুয়েত ড্রাইভিং কোম্পানিতে বেতন কত

কুয়েতে ড্রাইভিং কোম্পানি তে বেতন অনেক বেশি। কুয়েতে যারা ড্রাইভিং এর কাজ করে থাকেন তারা তাই ৭০ হাজার এর আশে পাশে এবং এক লক্ষ টাকার আশে পাশে বেতন পেয়ে থাকেন। কুয়েতের ড্রাইভিং কাজের চাহিদা অনেক বেশি রয়েছে। এবং এই কাজের বেতন ও অনেক ভালো। সুতরাং আপনারা যারা কুয়েতে ড্রাইভিং করার জন্য যেতে চান তারা নিশ্চিন্তে যেতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ  বিদেশে গার্মেন্টস চাকরি কিভাবে পাবেন আবেদনসহ বিস্তারিত

তবে এটা নির্ধারিত বেতন নয় আপনার বেতন কমবেশি হতে পারে। কুয়েত একটি উন্নত রাষ্ট্র। এই দেশে অনেক দেশ থেকে বিভিন্ন কাজের জন্য মানুষ এসে থাকেন। কুয়েতে ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি সহ বিভিন্ন কোম্পানিগুলোতে ড্রাইভিং এর চাহিদা রয়েছে বেশি।

কুয়েত কোম্পানি ভিসা বেতন কত
কোম্পানি ভিসা বেতন কত

কুয়েত সর্বোচ্চ বেতন কত

কুয়েতে সর্বোচ্চ বেতন ৬০ হাজার থেকে এক লক্ষ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। কিছু কিছু শ্রমিক বা কিছু কিছু কোম্পানির চাকুরিজীবী অনেক বেশি টাকা আয় করে থাকেন। তারা অনেক রকমের সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকেন যে কারণে তাদের বেতন টা ও অনেক বেশি। এক একটা কাজের ক্ষেত্রে একেক রকম বেতন নির্ধারণ করা হয়ে থাকে। কাজের উপর নির্ভর করে বেতন দেওয়া হয় এবং কত ঘন্টা কাজ করছে তার ওপর নির্ভর করে বেতন দেওয়া হয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃ  রোমানিয়া কোন কাজে কত বেতন ( বেতন বেশি ২০ টি কাজ )

কুয়েত খাদেম হিসেবে বেতন কত

যারা কুয়েতে খাদেম হিসেবে কাজ করেন তাদের মাসিক বেতন প্রায় ১৮ থেকে ৩০  হাজার টাকা হয়ে থাকে বা এর আশে পাশে। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে খাদেম হিসেবে কাজ করার পরেও ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত বেতন পেয়ে থাকে বা তার বেশি। সুতরাং আপনি কুয়েতে যে কোন ভিসা নিয়ে বা যে কোন কাজেই যান না কেন ভালো একটি বেতন পাবেন। কুয়েতের সকল কাজেরই ডিমান্ড অনেক ভালো। আশা করি আপনারা বুঝতে পেরেছেন কুয়েতের খাদেম হিসেবে বেতন কেমন পাবেন সে সম্পর্কে।

কুয়েত আল ফয়সাল কোম্পানি বেতন কত

কুয়েত আল ফয়সাল কোম্পানির বেতন মূলত ২৫০০০ থেকে ৬০ হাজার পর্যন্ত হয়ে থাকে বা তার বেশি। যারা আট ঘন্টা কাজ করেন তারা মূলত মাসে ২৫ হাজার থেকে ত্রিশ হাজার টাকা আয় করতে পারেন। যারা ১২ ঘন্টা কাজ করেন তারা মূলত 40 থেকে 50 হাজার টাকা আয় করেন। যারা ১৬ ঘন্টা কাজ করেন তারা ৬০ হাজার টাকা বা তার অধিক পরিমান আয় করে থাকেন। কাজের উপর নির্ভর করে বেতন কমবেশি হয়ে থাকে।

  • এয়ারপোর্ট এর কন্ট্রাক্ট
  • হাসপাতাল কন্ট্রাক্ট
  • মার্কেট এর কন্ট্রাক্ট
  • মসজিদ এর কন্ট্রাক্ট
  • পেট্রোল পাম্প এর কন্ট্রাক্ট

তবে এই কোম্পানি টির পজেটিভ দিক গুলো হলো এই কোম্পানিতে কাজের বেতন আটকে রাখে না। মাস শেষে পরিশোধ করে দেয়। আর একটি ভালো দিক হলো এই কোম্পানির অনেক বেশি কন্ট্রাক্ট পেয়ে থাকেন। সুতরাং এই কোম্পানিতে কাজের কোন ঘাটতি নেই আপনি যে বিষয়ে দক্ষ সেই কাজে নিয়োগ হতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ  সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা-সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা বেতন কত

কুয়েত ন্যাশনাল কোম্পানি বেতন কত

কুয়েত ন্যাশনাল কোম্পানির বেতন বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮ ০ হাজারের আশে পাশে। কুয়েত ন্যাশনাল কোম্পানি অনেক বড় একটি কোম্পানি। এই কোম্পানির অনেক রকমের কাজ রয়েছে। এই কোম্পানিতে গেলে আপনার কাজের ঘাটতি পরবে না। এই কোম্পানি টা অনেক কন্টাক্ট নিয়ে থাকেন। বর্তমানে যে সকল কন্টাকগুলো নিয়ে কাজ করছেন তার মধ্যে কয়েকটি নিচে উল্লেখ করা হলো।

  • রাস্তা ঘাটের কন্ট্রাক্ট
  • অফিস আদালতের কন্ট্রাক্ট
  • হাসপাতালের কন্ট্রাক্ট
  • এয়ারপোর্ট এর কন্ট্রাক্ট
  • স্কুলের ডিউটি

আরো অনেক রকমের কন্টাক্ট রয়েছে এই কোম্পানির। কুয়েতের একটি নামকরা কোম্পানি ন্যাশনাল কোম্পানি। যেটা অনেক বড় রকমের একটি কোম্পানি যে কারণে এই কোম্পানি টি অনেক বেশি কাজ পেয়ে থাকেন। এই কোম্পানিতে বেতনের কোন জট নেই। সকল বেতন কাজ শেষে ক্লিয়ার করে দেয়। বেতন নিয়ে এই কোম্পানিতে কোন টেনশন নেই।

কুয়েত আল জাজিরা কোম্পানি বেতন কত

কুয়েত আল জাজিরা কোম্পানির বেতন ২০ হাজার থেকে শুরু করে ৬০ হাজার পর্যন্ত বা তার অধিক। যারা প্রথম অবস্থায় এই কোম্পানিতে কাজ করতে যাবেন তারা সিঙ্গেল ডিউটি দিলে বিশ হাজার টাকা পাবেন আর ডাবল ডিউটি দিলে প্রায় ৪০ হাজার টাকার মত আয় করতে পারবেন প্রতি মাসে। আপনি নতুন অবস্থায় এই কোম্পানিতে ওভার টাইম কাজ করতে পারবেন না।

আরো পড়ুনঃ  দুবাই লেবার ভিসা কিভাবে করবেন-দুবাই লেবার ভিসা খরচ

যারা পুরনো থাকে তারা মূলত এই কোম্পানিতে ওভারটাইম কাজগুলো করে থাকে। তবে আপনি যদি নতুন হিসেবে এই কোম্পানিতে যান তাহলে আপনি সিঙ্গেল ডিউটির সাথে ডাবল ডিউটি করতে পারেন। তাহলে আপনি ৪০ হাজার টাকা বেতন পাবেন। সিঙ্গেল ডিউটি যদি ৮ ঘন্টা কাজ করা হয় তাহলে আপনাকে ডাবল ডিউটি এর জন্য ১৬ ঘন্টা কাজ করতে হবে।

2 Comments

  1. শারমিন রীমা

    মহিলাদের ক্লিনার ভিসাতে আল জাজিরা কোম্পানি কতো টাকা বেতন দেয়।

  2. Md Eliyas Hossain

    সুন্দর ভাবে সঠিক তথ্য তুলেছেন, ভালো লেগেছে প্রতিটা তথ্য এবং সঠিক পরামর্শ দিয়েছেন, ধন্যবাদ প্রিয় ভাই!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *