গুচ্ছে পাশ মার্ক কত ২০২৩ (নতুন নিয়ম)

গুচ্ছে পাশ মার্ক কত
গুচ্ছে পাশ মার্ক কত

আগামী ৩০ শে জুলাই থেকে ক ইউনিটের মাধ্যমে গুচ্ছভুক্ত ২২ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি শুরু হবে। ২০২৩ সালে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষাতে পাশ নাম্বার ৩০ নির্ধারণ করা হয়েছে। ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে কোন পাশ নম্বর ছিল না। ২০২৩ সালে পাশ নম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে ৩০।

২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে কোন ধরনের পাশ নম্বর না থাকার কারণে নতুন এই নিয়মের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের মনে প্রশ্ন জাগে। এই অবস্থায় কত নম্বর পেলে গুচ্ছ বিশ্ববিদ্যালয় চান্স হবে সেই প্রশ্নই সবার মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে।

গুচ্ছভূক্ত তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য তাদের মতামত জানিয়েছে এবারের উৎস ভর্তি পরীক্ষার ৫ নম্বর ৩০ নির্ধারিত হলেও নির্দিষ্টভাবে বলা যাচ্ছে না কত নম্বর পেলে চান্স মিলবে। কোন শিক্ষার্থী যদি ৩০ নাম্বারের উপর বেশি পায় তাহলে যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয় চান্স পাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

২০২৩ সালে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় পাশ নম্বর পেলেই যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হওয়ার সুযোগ থাকবে। গত শিক্ষাবর্ষের ফলাফল বিশ্লেষণের চান্স প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গিয়েছে যে। অপেক্ষাকৃত ভালো বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে চান্স পাওয়ার জন্য অবশ্যই ৫৫ থেকে ৬০ শতাংশ নাম্বার প্রয়োজন পড়ে। পিছিয়ে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পাশ নম্বর পেলেই ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাওয়া যাবে।

এবারের গুচ্ছে ভর্তি পরীক্ষায় ৩০ নম্বর পেলেই যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাওয়া যাবে

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডঃ মুহাম্মদ সাদিকুল আরেফিন বলেন ভর্তি পরীক্ষায় যারা বেশি নম্বর পাবে তারাই এবারে এগিয়ে থাকবে। আমরা এবার পাশ নাম্বার নির্ধারণ করে দিয়েছি ৩০ এর নিচে কেউ যদি পেয়ে থাকে তাহলে কখনোই সুযোগ পাবে না। ভর্তি পরীক্ষায় ৩০ নম্বর প্রাপ্ত সকলেই ভর্তির যোগ্য বলে বিবেচিত করা হবে।

গুচ্ছ পরীক্ষায় কত নম্বর পেলে চান্স পাওয়া যাবে

২০২৩ সালে গুচ্ছে ভর্তি পরীক্ষার পাস মার্ক নির্ধারিত হয়েছে ৩০। কোন স্টুডেন্ট যদি 30 নাম্বার পেয়ে পাস করে তাহলে এবারের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে। ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে কোন ধরনের পাশ মার্ক নির্ধারিত ছিল না। তাই এবারে নতুন এই নিয়মে যারা ৩০ নম্বর পাবে তাদের যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হওয়ার সুযোগ করে নিতে পারবে।

৩০ নম্বরের কম যদি কোন শিক্ষার্থী পায় তাহলে তার কোন বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে না। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন কত নম্বর পেলে চান্স হবে সেটি নির্ভর করে বলা মুশকিল তবে কোন স্টুডেন্ট যদি ৩০ এর উপর পায় তাহলে যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাবে।

ভালো কোন সাবজেক্ট নিয়ে গুচ্ছ ভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার জন্য অবশ্যই সত্তর শতাংশ নাম্বার থাকতে হবে

আরো পড়ুনঃ  ফেমিকন পিলের কার্যকারিতা কত ঘন্টা

গুচ্ছভুক্ত যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয় ভালো সাবজেক্ট নিয়ে পড়াশোনা করতে চাইলে কমপক্ষে ৭০ শতাংশ নম্বর পেতে হবে। তাহলে উচ্চভূক্ত যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয় ভালো সাবজেক্ট নিয়ে পড়াশোনা করার সুযোগ পাবে।

গুচ্ছে কত পেলে চান্স ২০২৩

এবারের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় কোন শিক্ষার্থী যদি ৩০ নম্বর পাই তাহলে ভুক্ত যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে। তবে ভালো কোন সাবজেক্ট নিয়ে পড়াশোনা করতে হলে অবশ্যই ৭০ শতাংশ নম্বর পেতে হবে। ৩০ এর নিচে কোন শিক্ষার্থী যদি নাম্বার পাই তাহলে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে না।

২০২৩ সালে নতুন নিয়ম করা হয়েছে এবারে ৩০ নম্বর পেলেই শিক্ষার্থীরা পাস করতে পারবে এবং যেকোনো একটি বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশোনা করার সুযোগ করে নিতে পারবে। এক্ষেত্রে কত নাম্বারের ভিত্তিতে কোন বিশ্ববিদ্যালয় নির্ধারিত হবে সেটি একদম ভোট কর্তৃক নির্ধারিত একটি বিষয়।

আরো পড়ুনঃ  নোরিক্স ১ খাওয়ার কতদিন পর মাসিক হয়

গুচ্ছে কাট মার্ক কত 

এবারের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় পাস নম্বর ৩০ নির্ধারিত হলেও ভালো সাবজেক্ট পাওয়ার জন্য অবশ্যই ৭০ শতাংশ নাম্বার তুলতে হবে। অপেক্ষাকৃত ভালো বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে চান্স পাওয়ার জন্য ৬০ শতাংশ নাম্বার প্রয়োজন পড়বে।

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে প্রশ্ন উত্তর

গুচ্ছে কত পেলে চান্স পাওয়া যায়?

এবারে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষাতে ৩০ নম্বর পেলেই গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাওয়া যাবে।

গুচ্ছে পাস মার্ক কত?

এবারে ভর্তি পরীক্ষায় পাস মার্ক নির্ধারিত হয়েছে ৩০ নম্বর। কোন শিক্ষার্থী ৩০ নম্বর পেলেই যে কোন একটি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে।

গুচ্ছে কাট মার্ক কত ?

৩০ নম্বর পেলেই গুচ্ছ ভুক্ত যে কোন বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশুনা করার সুযোগ পাবে।

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *