দুবাই কোম্পানি ভিসা | দুবাই কর্মী নিয়োগ ২০২৩

আজকে আমরা কথা বলবো দুবাই কম্পানি ভিসা নিয়ে। কিভাবে আপনারা দুবাই কোম্পানি ভিসা পাবেন এবং দুবাই কম্পানি ভিসার জন্য কোন এজেন্সির মাধ্যমে আবেদন করবেন এই নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আমরা এই কনটেন্ট এর মধ্যে তুলে ধরব। তাছাড়াও আপনারা জানতে পারবেন দুবাই কোম্পানি ভিসা তে বেতন কত পাওয়া যায়। এবং কি কি সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায় এই নিয়ে সম্পূর্ণভাবে আজকে আমাদের এই কনটেন্টে তুলে ধরা হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে বিগত বছরগুলোতে অনেক শ্রমিক সেখানে কাজে নিয়োজিত রয়েছে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন জন বিভিন্ন ধরনের কাজে নিয়োজিত আছে তবে অনেকেই বাংলাদেশ থেকে দুবাই কোম্পানির ভিসার মাধ্যমে গিয়েছে আবার অনেকেই ওয়ার্ক পারমিট সহ অন্যান্য ভাষার মাধ্যমে সেখানে কাজে নিয়োজিত আছে। তাই আজকে আমরা অন্যান্য বিষয়ে আলোচনা না করে সরাসরি কোম্পানি ভিসা নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আপনাদেরকে জানাবো।

আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে দুবাই কম্পানি ভিসা নিয়ে যেতে পারেন। তাহলে বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাশাপাশি ভালো বেতনে ওই কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ তৈরি করে নিতে পারবেন। তাই যে কোনো মূল্যে আপনি যদি দুবাইয়ে বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ তৈরী করে নিতে পারেন তাহলে আপনার দুবাই গিয়ে ভালো কাজে নিয়োজিত থাকতে পারবেন।

কেন দুবাই কম্পানি ভিসাতে যাবেন

আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে দুবাই কম্পানি ভিসার মাধ্যমে যেতে পারেন তাহলে আপনার সুযোগ সুবিধাসহ বেতন পাওয়ার পাশাপাশি আপনার বোনাস পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। তাছাড়াও আপনি অন্যান্য কাজেও কিন্তু বেতন এবং সুযোগ সুবিধা তৈরি করে নিতে পারবেন কিন্তু দুবাই কম্পানি ভিসার মাধ্যমে যেতে পারলে কোন ধরনের কথা ছাড়াই সরাসরি বেতন-বোনাস এবং অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা পাবেন।

তাই অনেক শ্রমিক রয়েছে যারা দুবাইয়ের কোম্পানি ভিসা বাংলাদেশের বিভিন্ন কোম্পানীর মাধ্যমে নিয়ে সেখানে পাড়ি দেয়। আবার অনেকেই আছে যারা দুবাইতে বর্তমানে কাজে নিয়োজিত আছে তারা কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ খুঁজতে থাকে। তবে এই কাজ গুলো সাধারনত বাংলাদেশের বিভিন্ন এজেন্সিগুলো ওই সমস্ত কোম্পানির সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়ে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক সেই সমস্ত কোম্পানিগুলোতে পাঠাই।

আরো পড়ুনঃ  বাংলাদেশে সিঙ্গাপুর ভিসা এজেন্টদের লিস্ট ( ঠিকানা ও ফোন নাম্বার )

দুবাই কোম্পানি ভিসা

বাংলাদেশের রিক্রুটিং এজেন্সিগুলো সরাসরি দুবাইয়ের বিভিন্ন কোম্পানির সাথে শ্রমিক দেওয়ার বিষয়ে চুক্তিবদ্ধ হয়। দুবাই নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হওয়া মাত্রই বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া সহ অন্যান্য রাষ্ট্রগুলোতে এজেন্সিগুলোর মাধ্যমে লোক নিয়োগ দিয়ে থাকে। তাই আপনারা যদি দুবাইয়ে কোম্পানি ভিসা নিয়ে যেতে চান তাহলে সরাসরি সরকার নিবন্ধিত এজেন্সির মাধ্যমে যোগাযোগ করে দুবাই কম্পানি ভিসা নিয়ে যেতে পারবেন।

তাছাড়া বর্তমানে যে সমস্ত কোম্পানিগুলোর রয়েছে সে সমস্ত কোম্পানিগুলোতে কর্মীর চাহিদা মেটানোর জন্য বাংলাদেশের এজেন্সিগুলো অথবা ইন্ডিয়ান এজেন্সিগুলোর মাধ্যমে দুবাইয়ের ওই সমস্ত কোম্পানিগুলোতে কাজ করার সুযোগ করে দিতে পারে এক্ষেত্রে ভিসার দাম সরকারি ভিসার থেকে অনেক বেশি হয়। তবে অবশ্যই আপনাকে সরকার নিবন্ধিত এজেন্সি কিনা সেই বিষয়টি আগে থেকে জেনে নিতে হবে।

আরো পড়ুনঃ  দুবাই ড্রাইভিং ভিসা | দুবাই ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত

তবে আপনি যদি আপনার পরিচিত কোন ব্যাক্তি দুবাইয়ের বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ করে থাকে তাহলে তাদের মাধ্যমেও কিন্তু আপনারা ভিসা তৈরি করে নিতে পারবেন। বর্তমানে আপনার পরিচিত কোন ব্যাক্তি যদি সে সমস্ত কোম্পানিতে কাজে নিয়োজিত থাকে তাহলে তার মাধ্যমে একটি ভিসার আবেদন করে আপনি দুবাইতে কোম্পানি ভিসা নিয়ে যেতে পারবেন।

তবে পরিস্থিতি আপনাকে ভিসা না দিতে চাই এবং আপনার সাথে যদি সে বিষয়ে না আগাতে চাই তাহলে আপনি তাকে টাকার অফার করতে পারেন যে আপনার কোম্পানিতে যদি একটা ভিসা তৈরি করে দিতে পারেন তাহলে আপনাকে আমি এত টাকা দিব এভাবে আপনারা ভিসা সংগ্রহ করতে পারেন। তবে অবশ্যই আপনার কোন পরিচিত ব্যক্তির মাধ্যমে এই কাজটি করবেন তা ছাড়া কখনোই অন্য কোন দালালের মাধ্যমে অথবা অন্য কোনো ব্যক্তির মাধ্যমে করবেন না।

পরিচিত ব্যক্তি ছাড়া যদি আপনারা দুবাইয়ের কোম্পানি ভিসা সংগ্রহ করতে চান তাহলে নানা ধরনের সমস্যার মধ্যে পড়তে পারেন তাই অবশ্যই চেষ্টা করবেন পরিচিত কোন ব্যক্তির মাধ্যমে করার তাহলে আপনার টাকা হারিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা নাও থাকতে পারে এবং অনেকেই আছে যারা টাকা দেয় না আপনাকে তারা নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা সম্পূর্ণটাই করে দিতে পারবে তবে অনেকে আছে যে টাকা খরচ করার জন্য অথবা টাকা বা কিছু লাভ পাওয়ার জন্য করে থাকে।

দুবাই কোম্পানি ভিসা

দুবাই কর্মী নিয়োগ ২০২৩

২০২৩ সালে বিভিন্ন কোম্পানিতে প্রায় ২০ হাজার শ্রমিক নেবে দুবাই সরকার। তাই যারা বর্তমানে দুবাইয়ে যাওয়ার চিন্তা-ভাবনা করছেন তারা নতুন বছরের শুরুতেই এই সুযোগটা লুফে নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার প্রয়োজনীয় কিছু দক্ষতাগুলো আগে তৈরি করে নিতে হবে যেমন আপনি যদি কোন বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে পারেন তাহলে আপনার ডিমান্ড অন্যান্য জায়গা থেকে বেশি পাবেন।

এবং দক্ষতা অর্জন থাকলে এবং আপনার পূর্ব কোথাও কোন দেশে যদি কাজ করার অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে আপনার ভিসা পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। দুবাইয়ের গণমাধ্যমগুলো নতুন বছর উপলক্ষে বিশেষ কিছু প্রজেক্ট দুবাই সরকার হাতে নেবে। এবং এক্ষেত্রে বিদেশি শ্রমিকদের গুরুত্ব বেশি দেওয়া হবে বিশেষ করে যারা দক্ষ শ্রমিক তাদের কাজ করার সুযোগ বেশি থাকবে।

দুবাই জব ফর বাংলাদেশি

বাংলাদেশের জন্য দুবাইয়ে বিভিন্ন ধরনের ভিসার মাধ্যমে কাজ করার সুযোগ রয়েছে যেমন এগ্রিকালচার, ইলেকট্রিক্যাল, ড্রাইভিং, মেকানিকাল, রেস্টুরেন্ট, পাইপ ফিটিং, কনস্ট্রাকশন, অটোমোবাইল, মেকানিক্যাল, ক্লিনিং, কেয়ারিং, মেডিকেল ক্লিনিক সহ বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান গুলোতে জব পাওয়ার সুযোগ রয়েছে। 

তবে এই সমস্ত জায়গায় কাজ করার জন্য অবশ্যই আপনার পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে আপনি যদি ইলেকট্রিক্যাল কাজ শিখে থাকেন তারপরে আপনি ইলেকট্রিক্যাল কাজ করার সুযোগ পাবেন। এবং দক্ষতার উপর ডিপেন্ড করে সাধারণত ভিসা দিয়ে থাকে। তাই আপনি দুবাইতে কাজ করার জন্য অবশ্যই দক্ষতা জরুরী।

দুবাই জব সাইট

দুবাই জব পাওয়ার জন্য দুবাইয়ের গভমেন্ট জব ওয়েবসাইটগুলো ফলো করতে পারেন তাছাড়াবেসরকারি এবং সরকারি বিভিন্ন ধরনের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির জন্য সরাসরি দুবাইয়ের বিভিন্ন জব এর ওয়েবসাইট রয়েছে এইসব সাইটগুলোতে আপনারা সরাসরি সিভির মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন

আরো পড়ুনঃ  আলবেনিয়া টুরিস্ট ভিসা-আলবেনিয়া স্টুডেন্ট ভিসা ( আবেদন প্রক্রিয়া )

তবে এই সমস্ত জব সাইট গুলোতে জবের জন্য আবেদন করতে হলে অবশ্যই আপনার একটি ভালো সিভি তৈরি করতে হবে। ভালো সিভি তৈরি করার পরে সেখানে আপনার দক্ষতা এবং পূর্বে কোথায় কাজ করেছেন সেই বিষয়টি সেখানে উল্লেখ করতে হবে তাহলে আপনার কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকবে।

দুবাই কোম্পানি ভিসা নিয়ে সর্তকতা

দুবাই কোম্পানি ভিসা নেওয়ার আগে অবশ্যই আপনারা যে কোম্পানির মাধ্যমে সেই কোম্পানিতে কি কি সুযোগ সুবিধা দিবে এবং কত টাকা বেতন এবং আপনাকে কত ঘন্টা কাজ করতে হবে এই বিষয়গুলো ভালোমতো জেনে নিবেন। এবং ভিসা হাতে পাওয়ার পরে আপনারা অনলাইনের মাধ্যমে ভালোমতো যাচাই-বাছাই করে যদি আপনাদের সঠিক মনে হয় তারপর এখানে আপনারা ভিসার দাম দিবেন।

আরো পড়ুনঃ  রোমানিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা চেক-রোমানিয়া সাবমিশন স্লিপ চেক

তার আগে কখনোই কোনো ধরনের টাকা-পয়সার লেনদেন করবেন না। বাংলাদেশের অনেক এজেন্সি রয়েছে যারা কিনা আপনাকে বিভিন্ন ধরনের ভুয়া ভিসা দিতে পারে। তাই অবশ্যই আপনি যে কোম্পানির মাধ্যমে যাবেন তার কোন রিক্রুটিং এজেন্সি নাম্বার আছে কিনা এবং পূর্বে তারা কত লোক পাঠিয়েছে এবং তাদের কোম্পানি কি কি সুযোগ সুবিধা দেয় তা অবশ্যই জেনে তার পরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিবেন। ধন্যবাদ এই ছিল কোম্পানি ভিসা নিয়ে বিস্তারিত তথ্য।

Usajobpoint একটি বাংলা ব্লগিং প্লাটফর্ম। এখানে দেশ বিদেশের চাকরির খবর ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন জানা-অজানা তথ্য প্রকাশ করা হয়। বাংলা ভাষার মাধ্যমে সঠিক তথ্য পৌছে দেয়াই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য।

3 thoughts on “দুবাই কোম্পানি ভিসা | দুবাই কর্মী নিয়োগ ২০২৩”

  1. আসসালামু আলাইকুম ভাই, আমি জাহিদ, আমি দুবাই লাইট হাউজ টেকনোলজি এই কোম্পানি তে অনলাইন এ আবেদন করি, ইনডিড জব প্লাটফর্ম এর মাধ্যমে, আমার সিভি দেখে কোম্পানির এইচ আর আমাকে কল করে ইন্টারভিউ ডেট দেয় ও ডেট অনুযায়ী ইন্টারভিউ নেয়,
    তারপর তারা আমাকে অফার লেটার পাঠায় কিন্তু অনারা বলে ভিসা এ টিকেট আমার খরচ এ যেতে হবে,
    কিন্তু ভাই এখন আমার জানা দরকার এখন আমি কিভাবে আমার ভিসা টা পেতে পারি,আমার কাছে কোম্পানির অফার লেটার আছে,
    আপনার সহযোগীতা কামনা করছি।

    Reply

Leave a Comment

You cannot copy content of this page