মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা 2023 | মরিশাস গার্মেন্টস বেতন কত

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা 2023
মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা 2023

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা ২০২৩ নিয়ে আজকে আমরা আপনাদের সঙ্গে আলোচনা করব। এখান থেকে আপনারা মরিশাস সম্পর্কে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে পারবেন। আপনি যদি মরিশাসের কাজ করার জন্য যেতে চান তাহলে এই সকল বিষয়গুলো যারা আপনার জন্য অত্যন্ত জরুরী। আজকের এই কন্টেন্টে আমরা মরিসাস সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব যা থেকে আপনারা সকলে উপকৃত হবেন।

মরিশাস হচ্ছে একটি দ্বীপ রাষ্ট্র এটি ভারত মহাসাগরে অবস্থিত আফ্রিকার দক্ষিণ পূর্ব উপকূলের সন্নিকটে। এই দ্বীপটি পুনর নাম হচ্ছে মরিশাস প্রজাতন্ত্র। এই মরিশাস দেশটিতে প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে অসংখ্য মানুষ বিভিন্ন কাজ করার জন্য যেয়ে থাকেন। মরিশাসের জনসংখ্যা প্রায় ১৩ লক্ষ এর আশেপাশে। মরিশাসে প্রাকৃতিক সম্পদ অনেক রয়েছে এখানকার মাটির উর্বর। এখানে কিসে কাজ সবচেয়ে বেশি করা হয়ে থাকে। বাংলাদেশ থেকে যারা মরিশাসে যায় তারা মূলত কৃষি কাজ বেশি করে থাকেন।

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা

মরিশাসে গার্মেন্টস ভিসা এবং অন্যান্য ভিসা নিয়ে বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর অনেক মানুষ কাজ করার জন্য যেয়ে থাকেন। মরিশাসে বিগত কয়েক বছর থেকে বেশ কিছু কর্মী নিয়োগ দিয়ে থাকছেন মরিশাস সরকার। যে কারণে বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ থেকেও মরিশাসে অনেকেই অনেক কাজের জন্য যেতে চান। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের সাথে মরিশাসের শ্রমিক চুক্তি হয়েছে যে কারণে আপনি এখন আগের তুলনাই অনেক সহজ এবং নিরাপদ ভাবে মরিশাসে পৌঁছাতে পারবেন।

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা ২০২৩

বর্তমান সময়ে আপনারা বাংলাদেশ থেকে মরিশাস গার্মেন্টস ভিসায় কাজ করতে যেতে পারবেন। ২০২৩ সালে মরিশাসে গার্মেন্টস শ্রমিক নিয়োগ নিচ্ছেন। মরিশাসে প্রতি অল্প খরচের মধ্যে দিয়ে যেতে পারবেন। মরিশাস এ সকল বেশ কিছু কাজের চাহিদা বেশি রয়েছে। যেমন, সুইং অপারেটর, মেকানিক্যাল ইত্যাদি সকল কাজের চাহিদা অনেক বেশি রয়েছে।

আরো পড়ুনঃ  দুবাই গার্মেন্টস ভিসা-দুবাই গার্মেন্টস ভিসা বেতন কত

বর্তমানে ২০২৩ সালে নতুন নতুন শ্রমিক বিভিন্ন দেশ থেকে নিয়োগ দিয়ে থাকবেন মরিশাস কোম্পানিগুলো বা মরিশাস সরকার। এবার সুইং অপারেটর এবং মেকানিক্যাল কাজের উপর নির্ভর করে অনেক শ্রমিক নিয়ে থাকবেন মরিশাসে। ২০২৩ সালের মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য নিচে উল্লেখ করা হলো।

মরিশাস গার্মেন্টস কাজের বেতন কত

মরিশাসে একজন শ্রমিক গার্মেন্টসে কাজ করে প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন প্রায়ই ১৩০০ মরিশাস রুপি বা ৩০০ মরিশাস ডলার আয় করতে পারবেন। যাকে বাংলা টাকায় পরিবর্তন করলে দাড়াই প্রায় ২৫ হাজার টাকা। তার মানে একজন শ্রমিক প্রতি মাসে কাজ করে আয় করতে পারবেন ২৫ হাজার টাকা বা ত্রিশ হাজার টাকা।

প্রথম অবস্থায় আপনি ২৫ হাজার টাকা বেতন পাবেন প্রতিমাসে। তবে অভিজ্ঞতা এবং কাজের মেয়াদ বাড়ার সাথে সাথে আপনারা প্রতি মাসে আয় করতে পারবেন ৩০ থেকে ৩৫ হাজার বা ৪০ হাজার টাকা। বিভিন্ন ক্যাটাগরি এবং বিভিন্ন কাজের উপর নির্ভর করে অথবা বিভিন্ন কোম্পানির উপর নির্ভর করে বেতন পরিবর্তন হয়ে থাকে।

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা কিভাবে পাবেন

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা আপনারা বিভিন্ন এজেন্সির মাধ্যমে পাবেন অথবা আপনি অন্যান্য মাধ্যমে নিজে নিজে ও মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা এর জন্য আবেদন করতে পারেন। আপনি এজেন্সির সাহায্য নিয়ে অথবা নিজে নিজে অনলাইনের মাধ্যমে মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা পেতে পারেন।

আরো পড়ুনঃ  রোমানিয়া গার্মেন্টস ভিসা ২০২৩ | রোমানিয়া গার্মেন্টস ভিসা বেতন কত

বর্তমান সময়ে আপনি অল্প টাকার মধ্য দিয়ে মরিশাস যেতে পারবেন গার্মেন্টস ভিসা নিয়ে বাংলাদেশ থেকে। এবং সেখানে গিয়ে আপনি গার্মেন্টস এর কাজ খুব ভালোভাবে কাজ করতে পারবেন এবং প্রতিমাসে আয় করতে পারবেন প্রায় ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা।

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসায় আবেদন প্রক্রিয়া আপনারা অনলাইনের মাধ্যমে নিজে নিজে ই সম্পন্ন করতে পারবেন। অথবা আপনারা চাইলে যে কোন এজেন্সির সাহায্য নিয়ে খুব সহজেই মরিশাস গার্মেন্টস এর আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারেন। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ থেকে আপনি সরকারীভাবে এবং বেসরকারিভাবে মরিশাসে কাজ করার জন্য যেতে পারবেন।

মরিশাস সরকার বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশ থেকে শ্রমিক নিয়ে থাকছেন। বাংলাদেশ থেকে বর্তমানে সুইং অপারেটর এবং মেকানিক্যাল কাজের জন্য বেশি শ্রমিক নিয়ে থাকছে মরিশাস সরকার। ২০২৩ সালে আপনি খুব সহজেই বাংলাদেশ থেকে মরিশাসে কাজ করার জন্য যেতে পারবেন।

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসার দাম কত

মরিশাস গার্মেন্টস এর ভিসার দাম হয়ে থাকে প্রায় দুই থেকে আড়াই লক্ষ টাকা। সরকারিভাবে যেতে চাইলে আপনার খরচ ২ লক্ষ টাকার মতো হবে। তবে আপনি যদি এজেন্সের মাধ্যমে যেতে চান তাহলে আপনার খরচ ৩ থেকে ৫ লক্ষ টাকা লাগতে পারে। বিভিন্ন এজেন্সি বা ভিসা ক্যাটাগরির উপর নির্ভর করে ভিসার দাম কম বা বেশি হয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃ  রোমানিয়া ওয়ার্ক পারমিট ভিসা চেক-রোমানিয়া সাবমিশন স্লিপ চেক
মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা 2023
মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা 2023

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসার জন্য আপনার বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হবে। আমরা সকলেই জানি যে যেকোনো কিছু করার পূর্বে আমাদের ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন হয় বা কাগজপত্রের প্রয়োজন হয়। তেমনি ভাবে মরিশাস গার্মেন্টস ভিসার জন্য ও আপনার বেশ কিছু কাগজপত্রের প্রয়োজন হবে। যে সকল কাগজপত্র গুলোর প্রয়োজন হবে তার নিচে উল্লেখ করা হলো।

  • প্রথমত আপনার একটি পাসপোর্ট এর প্রয়োজন হবে।
  • পাসপোর্ট এর সর্বনিম্ন 6 মাস মেয়াদ থাকতে হবে অথবা তার বেশি মেয়াদ থাকতে হবে।
  • পাসপোর্টে কমপক্ষে দুইটি ফাঁকা পৃষ্ঠা থাকতে হবে।
  • ভোটার আইডি কার্ড এর প্রয়োজন হবে।
  • অবশ্যই আপনার বয়স ১৮ বছর এর বেশি হতে হবে।
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট এর প্রয়োজন হবে।
  • মেডিকেল রিপোর্ট এর প্রয়োজন হবে।
  • করোনার টিকা কার্ডের প্রয়োজন হবে।
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট এর প্রয়োজন হবে।

 

মরিশাস গার্মেন্টস কর্মী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

মরিশাসে গার্মেন্টস কর্মী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি তারা তাদের বিভিন্ন অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে থাকেন। আপনি যদি সেই বিষয় কাজ করতে চান তাহলে আপনি আপনার যোগ্যতা এবং দক্ষতা দিয়ে সেখানে আবেদন করতে পারবেন। পরবর্তীতে মরিশাস কোম্পানিগুলো যদি আপনাকে নির্বাচন করে থাকেন কাজ করার জন্য তাহলে আপনি গার্মেন্টস কর্মী হিসেবে নিয়োগ পেয়ে যাবেন। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রকাশ করে থাকেন মরিশাস কোম্পানিগুলো।

আরো পড়ুনঃ  ওমান ফ্রি ভিসা - ওমান দোকান ভিসা

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা বন্ধ নাকি খোলা

বর্তমান সময়ে মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা খোলা রয়েছে। ২০২৩ সালে অনেক শ্রমিক নিয়োগ নিয়ে থাকছেন মরিশাস সরকার। যেখানে বাংলাদেশ থেকেও অনেকে বিভিন্ন কাজ করার জন্য যেতে চান মরিশাসে। যারা বাংলাদেশ থেকে মরিশাসে কাজ করার জন্য যেতে চান তারা মূলত অনেকেই জানতে চান মরিশাস এ গার্মেন্টস ভিসা বন্ধ নাকি চালু সে সম্পর্কে। মরিশাসের গার্মেন্টস ভিসা বর্তমান সময়ে চালু রয়েছে। আপনি বাংলাদেশ থেকে খুব সহজেই মরিশাস যেতে পারবেন সরকারিভাবে এবং বেসরকারিভাবে।

সরকারিভাবে মরিশাস গার্মেন্টস কর্মী নিয়োগ

বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের সরকারের সাথে মরিশাসের সরকারের একটি চুক্তি হয়েছে। যে কারণে বর্তমান সময়ে সরকারিভাবে ও বাংলাদেশ থেকে মরিশাসে কাজ করার জন্য মানুষ যেতে পারছেন। সরকারিভাবে গেলে বেশ কিছু সুযোগ সুবিধা ও পাওয়া যায়। মরিশাস সরকার বিভিন্ন দেশ থেকে কাজ করার জন্য কর্মী নিয়ে থাকেন। তেমনি ভাবে বাংলাদেশ থেকেও শ্রমিক নিয়ে থাকেন কাজ করার জন্য।

আরো পড়ুনঃ  ফিনল্যান্ড কাজের ভিসা আবেদন খরচ সহ বিস্তারিত

বাঙালিরা মরিশাসে গিয়ে বেশ কয়েক রকম কাজ করে থাকেন। বিভিন্ন ক্যাটাগরির জন্য বিভিন্ন রকম বেতন দিয়ে থাকে মরিশাস কোম্পানিগুলো। সরকারিভাবে আপনি যদি মরিশাস গার্মেন্টস এর কাজে যেতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই গার্মেন্টস কাজের বিষয়ে অভিজ্ঞ হতে হবে। অভিজ্ঞতা এবং যোগ্যতা ছাড়া আপনার কখনোই সরকারিভাবে মরিশাস এ কাজ করতে যেতে পারবেন না।

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসাতে যেতে কত টাকা লাগে

মরিশাসী গার্মেন্টস ভিসা নিয়ে যেতে চাইলে আপনার খরচ হবে প্রায় দুই থেকে আড়াই লক্ষ টাকা। এজেন্সি ভেদে কিছু টাকা কম বা বেশি হতে পারে। বাংলাদেশ থেকে আপনি যদি মরিশাসে যেতে চান তাহলে আপনি এজেন্সের মাধ্যমে অথবা সরকারিভাবে আপনি বাংলাদেশ থেকে মরিশাস যেতে পারবেন। ভিসার ধরন এবং ক্যাটাগরির উপর নির্ভর করে ভিসা ফি কম বা বেশি হয়ে থাকে।

মরিশাস গার্মেন্টস কাজে সুযোগ সুবিধা ভালো নেই কতকাল আর হাতে হাত কত

মরিশাসে গার্মেন্টস কাজের জন্য আপনি যদি গিয়ে থাকেন তাহলে আপনি বেশ কিছু রকম সুযোগ-সুবিধা পেয়ে যাবেন। বিভিন্ন কোম্পানি বিভিন্ন রকম সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকেন। কাজের উপর নির্ভর করেও সুযোগ-সুবিধা পরিবর্তন হয়ে থাকে। আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে মরিশাসে গিয়ে গার্মেন্টসে কাজ করেন তাহলে আপনি যে সকল সুযোগ সুবিধা গুলো পাবেন তা নিচে উল্লেখ করা হলো।

  • প্রথমত আপনার থাকা খাওয়া কোম্পানির বহন করবে।
  • যাতায়াত খরচ কোম্পানি বহন করবেন।
  • ওভারটাইম করার সুযোগ-সুবিধা পেয়ে যাবেন।
  • চিকিৎসা খরচ কোম্পানি বহন করবেন।

মূলত আপনারা যদি মরিশাসে গার্মেন্টস এর কাজ করেন তাহলে এই সকল সুযোগ সুবিধা গুলো আপনারা পেয়ে যাবেন। আরো অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা ও পেতে পারেন। এই সকল সুযোগ সুবিধা গুলো থাকলে আপনার প্রতি মাসে টাকা পুরোটাই রেখে দিতে পারবেন। থাকা খাওয়া নিয়ে আপনাদের কোন চিন্তা করতে হবে না।

আরো পড়ুনঃ  আলজেরিয়া গার্মেন্টস ভিসা-আলজেরিয়া গার্মেন্টসে বেতন কত

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা নিয়ে সতর্কতা

মরিশাস গার্মেন্টস ভিসা নিয়ে আমাদের সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। মরিশাসে যেতে হলে আমাদের এজেন্সি সাহায্য নিতে হবে অথবা সরকারিভাবে যেতে হবে। আপনি যদি কোন এজেন্সির মাধ্যমে দিয়ে যান তাহলে আপনাকে অবশ্যই এজেন্সি সম্পর্কে বিস্তারিত খোঁজ নিতে হবে। তাছাড়া আপনি অবৈধ এবং মাধ্যমে গেলে আপনি বড় রকমের সমস্যার সম্মুখীন হবেন।

বাংলাদেশে অনেক অবৈধ এজেন্সি রয়েছে এবং অনেক দালাল রয়েছে যারা প্রতিনিয়ত মানুষকে লোক দেখে অনেক টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। সেই দিকে আপনাদের অবশ্যই নজর রাখতে হবে। আপনি ভিসা পাওয়ার পরে আপনার ভিসা অবশ্যই অনলাইনের মাধ্যমে চেক করে নিবেন। তাহলে আপনি বৈধ ভিসা নাকি অবৈধ ভিসা তা বুঝতে পারবেন।

আপনার ভিসা যদি অবৈধ হয় তাহলে আপনি দেশে থেকে তার বিরুদ্ধে অ্যাকশন নিতে পারবেন। কিন্তু আপনি যদি পরীক্ষা না করে মরিশাসে যান এবং সেখানে গিয়ে কোন সমস্যার সম্মুখীন হন তাহলে আপনার কিছু করার থাকবে না। সুতরাং আমাদের সকলের উচিত মরিশাস যাওয়ার পূর্বে বা যে কোনো কাজ করার পরিবেশ সতর্কতা অবলম্বন করা।

কাতার ড্রাইভিং ভিসা ২০২৩ | কাতার ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *