মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা ও ইলেকট্রিক কাজের বেতন কত

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা
মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা ও মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কাজের বেতন কত এই নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আজকের এই কনটেন্ট এর মধ্যে জানতে পারবেন। তাছাড়াও জানতে পারবেন মালয়েশিয়াতে ইলেকট্রিক ভিসা নিয়ে যাওয়ার জন্য কত টাকা খরচ হয় এবং কি কি সুবিধা পাবেন এই ভিসাতে এবং সর্বনিম্ন কত টাকা বেতন হয় মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসাতে তা বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেছি।

বর্তমানে মালয়েশিয়াতে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে কাজ করার সুযোগ রয়েছে শ্রমিকদের তবে এক্ষেত্রে যারা উন্নতমানের কাজগুলো করতে চাই যেমন ইলেকট্রিক ড্রাইভিং রেস্টুরেন্ট কর্মী সহ অন্যান্য কাজ গুলো। তার মধ্যে অনেকেই জানেনা যে ইলেকট্রিক কাজের বেতন কত টাকা এবং মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা খরচ কত টাকা পড়ে। তাই আজকে আমরা সম্পূর্ণভাবে এই বিষয়টা নিয়ে আপনাদেরকে জানাবো।

অন্যান্য কাজের তুলনায় মালয়েশিয়ায় ইলেকট্রিক কাজ করার চাহিদা বেশি থাকে এবং এবং ইলেকট্রিক কাজের বেতন বেশি পাওয়া যায় তাই অনেকেই ইলেকট্রিক এর কাজ করার জন্য মালয়েশিয়াতে যেতে চাই। অন্যান্য কাজের তুলনায় এই কাজে বেতন বেশি এবং সুযোগ সুবিধা বেশি পাওয়ার কারণেই মূলত সবাই ইলেকট্রিক ভিসার খোঁজ করে থাকে।

মালয়েশিয়ায় ইলেকট্রিক ভিসা তে কেন যাবেন

মালয়েশিয়াতে ইলেকট্রিক কোম্পানিগুলোতে কাজের আগ্রহ বেশি থাকার কারণে বিভিন্ন দেশ থেকেই মানুষ সেখানে কাজে আসছে। এবং সেইসাথে এই কাজে বেতন বেশি এবং সুযোগ সুবিধা বেশি এবং নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী এখানে কাজ করার সুযোগ থাকে। তাই বর্তমানে যারা ইলেকট্রিক কাজে দক্ষ তারা মালয়েশিয়াতে গিয়ে নিজেও কাজ করতে পারবে এবং কোম্পানির অধীনে কাজ করার সুযোগ তৈরী করে নিতে পারবে।

সেইসাথে এখানে নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী আপনি ইলেকট্রিক এর প্রোডাক্ট নিয়ে বিজনেস করার সুযোগ পাবেন এক্ষেত্রে আপনাকে প্রথম অবস্থায় একটি বিজনেস লাইসেন্স তৈরি করতে হবে। তাছাড়াও আপনি চাইলে বাসাবাড়িতে এবং নিজেও একটি কর্মসংস্থান তৈরি করে সেখানে ইলেকট্রিক কাজ করার সুযোগ তৈরি করে নিতে পারবেন।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা নিতে হলে সরকারি অথবা বেসরকারি এজেন্সির মাধ্যমে ইলেকট্রিক ভিসা সংগ্রহ করতে পারবেন অথবা আপনার পরিচিত কোন ব্যক্তি যদি মালয়েশিয়াতে ইলেকট্রিক কোম্পানিতে কাজ করে সেখান থেকে আপনি সুযোগ তৈরি করে নিতে পারবেন। তবে মালয়েশিয়াতে এলেক্ট্রিক ভিসা তে কাজ করতে হলে ড্রয়িং ভালোমতো জানতে হবে। তাহলে আপনি মালয়েশিয়ায় ইলেকট্রিক ভিসা নিতে পারবেন।

আপনাদের জেনে রাখা উচিত যে আপনি যদি মালয়েশিয়াতে মিস্ত্রি হন প্রথমে আপনাকে ছয় মাসের একটি প্রশিক্ষণ নিতে হবে এবং প্রশিক্ষণে ভালোমতো ড্রইং সম্পর্কে জানতে হবে এক্ষেত্রে আপনি ভালোমতো ড্রয়িং যদি জেনে থাকেন তাহলে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন ইলেকট্রিক কোম্পানিতে নিজ দায়িত্বে এসেও ইলেকট্রিক ভিসার মাধ্যমে কাজ করতে পারবেন। তাই প্রথম অবস্থায় আপনাকে ভালোমতো ইলেকট্রিক কাজের একটি প্রশিক্ষণ নিতে হবে।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কাজের প্রশিক্ষণ

মালয়েশিয়া যাওয়ার আগে আপনারা ইলেকট্রিক কাজ আগে শিখে নিতে হবে তারপরে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন কোম্পানিতে আপনারা জব এর জন্য আবেদন করতে পারবেন অথবা বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি এজেন্সির মাধ্যমে মালয়েশিয়াতে ইলেকট্রিক কাজ করার সুযোগ তৈরি করে নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে প্রথম অবস্থায় বাংলাদেশে অবস্থিত বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র রয়েছে সেগুলো থেকে আপনাকে ড্রইং সম্পর্কে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ  কাতার ড্রাইভিং ভিসা ২০২৩ | কাতার ড্রাইভিং ভিসা বেতন কত

বাংলাদেশের সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো রয়েছে তার মধ্যে অন্যতম হলো টিটিসি এই সরকারি টিটিসি কেন্দ্রগুলো থেকে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য ইলেকট্রিক কাজের প্রশিক্ষণ নিতে পারবেন এক্ষেত্রে ৩ মাস এবং ৬ মাস মেয়াদী প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়ে থাকে সরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। এখান থেকে প্রথম অবস্থায় আপনাকে ড্রইং সম্পর্কে ভালোমতো জেনে তার পরে মালয়েশিয়াতে গিয়ে বিভিন্ন ধরনের কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ তৈরি করতে পারবেন।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কোম্পানিতে চাকরি

মালয়েশিয়ায় ইলেকট্রিক কোম্পানিতে চাকরি করার জন্য প্রথম অবস্থায় ইলেকট্রিক কাজের দক্ষতা থাকতে হবে তারপরে আপনি মালয়েশিয়ার বিভিন্ন কোম্পানিতে ইলেকট্রিক কাজের জন্য আবেদন করতে পারবেন। অন্যান্য ক্যাটাগরির কাজের তুলনায় ইলেকট্রিক কাজের অবশ্যই দক্ষতা থাকতে হয়। আবার কোম্পানিগুলোতে বিশেষ করে ইলেকট্রিক কাজের ওপর কয়েক বছরের এক্সপেরিয়েন্স থাকতে হয়। তাই প্রথম অবস্থায় আপনারা মালয়েশিয়াতে যাওয়ার আগে নির্দিষ্ট কোন কোম্পানির অধীনে ইলেকট্রিক কাজ দক্ষতা অর্জন করে তারপরেই মালয়েশিয়াতে যাওয়া উচিত।

আরো পড়ুনঃ  ইতালি ভিসা চেক, ইতালি ভিসা চেক বই পাসপোর্ট নম্বর

সাধারণত মালয়েশিয়াতে আপনি ইলেকট্রিক কাজ করার জন্য চাইলে কোম্পানির অধীনে কাজ করতে পারবেন অথবা নিজেও ইলেকট্রিক কাজ করতে পারবেন। বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে অনেকেই আছে যারা ইলেকট্রিক কাজের উপর নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী বিভিন্ন বাসাবাড়িতে এবং দোকানে কাজ করার সুযোগ তৈরী করে নিয়েছে তবে এক্ষেত্রে প্রথম অবস্থায় আপনাকে ভালোমতো ড্রইং বুঝতে হবে তাহলেই আপনি ইলেকট্রিক কাজ করতে পারবেন এবং আপনার মূল্য বৃদ্ধি হবে।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কাজের বেতন কত

মালয়েশিয়াতে একজন ইলেকট্রিক শ্রমিকের বেতন মাসে ৭০ হাজার টাকা থেকে শুরু করে এক লক্ষ বিশ হাজার টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। তবে আপনি যদি মাসিক চুক্তিতে বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ করেন তাহলে বেতন ৮০ হাজার টাকা থেকে এক লক্ষ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। তাছাড়াও আপনি নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী বিভিন্ন বাসাবাড়িতে অথবা ইলেকট্রিক দোকানে কাজ করার সুযোগ করতে পারবেন।

মালয়েশিয়া প্যানাসনিক কোম্পানি ইলেকট্রনিক্স

বর্তমানে মালয়েশিয়ায় এই কোম্পানিতে নতুন বছর উপলক্ষে এলেক্ট্রিক শ্রমিক নেওয়ার কথা উল্লেখ করেছে এখানে মিনিমাম ২০ এলেক্ট্রিক নেওয়া হবে বলে তারা জানিয়েছে। মালয়েশিয়া প্যানাসনিক কোম্পানিতে কাজ করার জন্য পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। এবং আপনি কোথায় কতদিন কাজ করেছেন এই বিষয়ে একটি প্রমাণ দেখতে চাওয়া হয়। তাই যারা মালয়েশিয়ায় এই কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ খুঁজছেন তারা নতুন বছর উপলক্ষে আবেদন করতে পারেন।

তাদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে রিকোয়ারমেন্ট দেখে তারপরে আবেদন করবেন এবং কতজন লোক নিবে এবং কত বছরের এক্সপেরিয়েন্স সেখানে চাওয়া হয়েছে সেই বিষয়টা আগে দেখে নিবেন।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা কিভাবে পাবেন

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসা আবেদন করার জন্য অবশ্যই আপনার ইলেকট্রিক কাজ সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে তাহলেই আপনি মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন। মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য যে সমস্ত সরকারি রিক্রুটিং এজেন্সি রয়েছে এ সমস্ত এজেন্সির মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন অথবা বাংলাদেশ বিএমইটি অথবা বোয়েসেল এই দুই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে যোগাযোগ করেও আপনারা ইলেকট্রিক ভিসার মাধ্যমে মালয়েশিয়ায় যেতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ  ব্রুনাই ফ্রি ভিসা পাওয়ার উপায় এবং ব্রুনাই ফ্রী ভিসার দাম কত

বর্তমানে যারা অন্যান্য দেশে আছেন এবং ইলেকট্রিক কাজ নিয়োজিত আছেন তারা চাইলে খুব সহজেই মালয়েশিয়াতে ইলেকট্রিক ভিসাতে যেতে পারবেন। এক্ষেত্রে তাদের জন্য সুযোগ সুবিধা বেশি এবং মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ বেশি পাওয়া যায় এবং অন্যদের তুলনায় বেশি দেওয়া হয়ে থাকে।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসার দাম

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসার জন্য খরচ করতে হবে মোটামুটি তিন লক্ষ টাকা থেকে 5 লক্ষ টাকা পর্যন্ত তবে এক্ষেত্রে সরকারি ভাবে যদি আপনি মালয়েশিয়ায় ইলেকট্রিক ভিসা নিয়ে যেতে পারেন তাহলে খরচ অনেকটাই কম হবে। তবে বেসরকারিভাবে গেলে খরচ বেশী হবে। সরকারিভাবে যাওয়ার জন্য ইলেকট্রিক কাজের ওপর দক্ষতা অর্জন করে পরীক্ষা দেওয়ার মাধ্যমেই মালয়েশিয়ায় ইলেকট্রিক ভিসার মাধ্যমে যেতে পারবেন।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক কাজ কিভাবে পাবেন

মালয়েশিয়াতে ইলেকট্রিক কাজ করার জন্য প্রথম অবস্থায় আপনাকে ইলেকট্রিক কাজ সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকতে হবে। এবং ইলেকট্রিক কাজের দক্ষতা থাকলে আপনি নিজেই বিভিন্ন বাসাবাড়িতে অথবা দোকান দিয়ে কাজ করার সুযোগ তৈরি করে নিতে পারবেন অথবা কনস্ট্রাকশন কম্পানি সহ অন্যান্য যে সমস্ত ইলেকট্রিক কোম্পানি রয়েছে এই সমস্ত কোম্পানিতে কাজ করার সুযোগ তৈরি করে নিতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ  দুবাই নিউজ আজকের ২০২৩ | দুবাই আজকের খবর

আপনার পরিচিত কোন ব্যক্তি যদি ইলেকট্রিক কাজ করে তাদের মাধ্যমেও আপনারা মালয়েশিয়াতে ইলেকট্রিক কাজ সংগ্রহ করে নিতে পারবেন এক্ষেত্রে খুব সহজ হবে আপনার জন্য তবে আপনি যদি এক্সপার্ট হন তাহলে এই কাজ পাওয়ার জন্য আপনাকে তেমন কোনো সমস্যা হবে না। কারণ মালয়েশিয়াতে এই কাজের চাহিদা প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পাচ্ছে বিশেষ করে কনস্ট্রাকশন কম্পানি গুলোতেই ইলেকট্রিক কাজের চাহিদা বেশি।

মালয়েশিয়া ইলেকট্রিক ভিসার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

মালয়েশিয়াতে ইলেকট্রিক কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র প্রয়োজন পড়ে এই ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার আজ এই প্রতিষ্ঠান থেকে ইলেকট্রিক কাজের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন সেই কোম্পানি থেকে অবশ্য একটি সার্টিফিকেট তৈরি করে নিবেন। আপনি যে প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছেন সেই প্রতিষ্ঠান থেকে একটি সনদপত্র অথবা রশিদ সংগ্রহ করে রাখবেন এতে করে আপনি মালয়েশিয়ার বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ করার জন্য সুযোগ তৈরি করে নিতে পারবেন।

কারণ মালয়েশিয়াতে বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ করার আগে তারা পূর্ব অভিজ্ঞতা স্বরূপ বিভিন্ন কাগজপত্র দেখানো লাগে। এবং সেইসাথে আপনি কতবছর কাজ করছেন এবং কোথায় প্রশিক্ষণ নিয়েছেন এগুলো আপনাকে জানানোর জন্য এবং প্রমাণ হিসাবে দেখানোর জন্যই মূলত এই কাগজপত্রগুলো সংগ্রহ করে রাখতে হবে। প্রয়োজনে আপনি যেই দেশে এবং যে কোম্পানিতে কাজ করেছেন সেই কোম্পানিতে এই কাগজ সংগ্রহ করার জন্য আপনাকে একটু চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। তাহলে মালয়েশিয়াতে ইলেকট্রিক কাজ পাওয়ার জন্য সহজ হবে।

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *