মাল্টা কাজের ভিসা ২০২৩ ( নতুন নিয়োগ )

মাল্টা কাজের ভিসা
মাল্টা কাজের ভিসা

আজকে আমরা কথা বলব মাল্টা কাজের ভিসা নিয়ে কিভাবে আপনারা মাল্টাতে কাজের ভিসা নিয়ে যেতে পারবেন। মাল্টা কাজের ভিসার দাম কত। এবং সঠিক উপায়ে মাল্টাতে কিভাবে যাবেন এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তর গুলো আজকের এই কন্টেন্টের মধ্যে পেয়ে যাবেন। তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক এ সংক্রান্ত তথ্যগুলো নিয়ে আজকের মাল্টা সংক্রান্ত বিস্তারিতভাবে আলোচনা।

ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত কান্ট্রির মধ্যে মাল্টাতে যাওয়া সব থেকে সহজ। দেশের তুলনায় মাল্টাতে ভালো পরিমাণ বেতন পাওয়া যায়। অনেকেই মাল্টাতে যাওয়ার পরে অন্যান্য দেশে যাওয়ারও সুযোগ তৈরি করে নাই। তবে সঠিক পদ্ধতিতে কিভাবে মাল্টাতে যেতে হয় এবং মাল্টা কাজের ভিসা কিভাবে পাবেন এ সংক্রান্ত তথ্য গুলো অনেকেই জানে না।

আজকের এই আর্টিকেলটি আপনারা যদি মনোযোগ সহকারে পড়েন তাহলে মাল্টা কাজের ভিসা এবং মাল্টাতে নতুন কাজের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি সংক্রান্ত তথ্য গুলো খুব সুন্দর মতো বুঝতে পারবেন। তাহলে চলুন কথা না বাড়িয়ে দেখে নেওয়া যাক মাল্টা কাজের ভিসা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য।

মাল্টাতে কেন কাজে যাবেন

মাল্টা হলো ইউরোপীয় ইউনিয়ন ভক্ত একটি দেশ মাল্টা থেকে কেউ যদি একবার কাজের ভিসা নিয়ে যেতে পারে তাহলে পরবর্তীতে সে রিনিউ করে আবারো সেখানে অবস্থান করতে পারবে। এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোতেও সে অনায়াসে যাতায়াত করার সুযোগ পাবে। মাল্টাতে অভিজ্ঞ শ্রমিকদের কাজের মূল্যায়নের ক্ষেত্রে ভালো পরিমাণ বেতন প্রদান করে থাকে।

এমনকি আপনি যদি মাল্টাতে যান সে ক্ষেত্রে আপনাকে ভাষা দক্ষতা দেখানোর প্রয়োজন পড়ে না। এখানে আপনার ইংলিশের বেসিক জানা থাকলে আপনি মাল্টাতে ঢুকতে পারবেন। তবে অবশ্যই আপনাকে বেসিক ইংলিশ জানতে হবে এবং ইংলিশ পড়াশোনা তাহলে আপনি মাল্টা গিয়ে ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

বর্তমানে মাল্টাতে যাওয়া প্রসঙ্গে অনেকের মধ্যে অনেক ধরনের ভুল ধারণা আছে তাই আজকে আমরা এই কন্টেন্টের মধ্যে ওই বিষয়গুলো নিয়ে আপনাদের মাঝে তুলে ধরবো তাহলে চলুন পর্যায়ক্রমে আগে জেনে নেওয়া যাক মাল্টা কাজের ভিসার দাম কত এবং কিভাবে আপনারা ভিসা পাবেন এই সংক্রান্ত তথ্য গুলো আগে জেনে নেওয়া যাক।

আরো পড়ুনঃ  গ্রীস কৃষি ভিসা ২০২৩ আবেদন ফ্রম

মাল্টা কাজের ভিসা কিভাবে পাবেন

মাল্টা কাজের ভিসা দুই ভাবে সংগ্রহ করতে পারবেন একটি হচ্ছে সরকারি ভাবে আর অন্যটি হচ্ছে বেসরকারি এজেন্সি গুলোর মাধ্যমে। সরকারিভাবে বুয়েসেলের মাধ্যমেও যাওয়া যাই অথবা সরকার নিবন্ধিত যে সমস্ত এজেন্সি গুলো রয়েছে এই এজেন্সি গুলোর মাধ্যমে আপনারা মাল্টাতে কাজের ভিসা নিয়ে যেতে পারবেন।

তবে সরকারিভাবে মাল্টাতে যাওয়ার জন্য আপনাদেরকে অবশ্যই সরকারি এজেন্সি গুলোতে যখন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয় তখনই শুধুমাত্র আপনারা যেতে পারবেন এবং নির্দিষ্ট কাজের উপর অভিজ্ঞতা দেখিয়ে তারপরে আপনাদেরকে সরকারিভাবে মাল্টাতে যেতে হবে।

আর আপনারা যদি বেসরকারিভাবে পাল্টাতে যেতে চান তাহলে বেসরকারি উপায়ে খরচ একটু বেশি হলেও কিন্তু যে কোন সময় মাল্টা কাজের ভিসা নিতে পারবেন। তবে মনে রাখবেন বেসরকারি অথবা সরকার নিবন্ধিত এজেন্সি গুলোর মাধ্যমে কিন্তু মাল্টা কাজের ভিসা সংগ্রহ করার পূর্বে অবশ্যই ভালো মতো যাচাই-বাছাই করে তারপরে মাল্টা কাজের ভিসা নিবেন।

সরকার নিবন্ধিত অথবা বেসরকারি এজেন্সি ব্যতীত কিন্তু মাল্টা কাজের ভিসা পাওয়া যায় এ বিষয়গুলো জানার জন্য নিচে বিষয়গুলো ভালোমতো পড়ুন

তাছাড়া আপনারা যদি মাল্টা কাজের ভিসা নিজেই করতে চান সেই প্রসেস গুলো জানার জন্য আপনাদেরকে অনলাইন সম্পর্কে একটু ধারণা থাকতে হবে। অনলাইন সম্পর্কে যদি আপনাদের ধারণা থাকে তাহলে নিজেও কিন্তু আপনি মাল্টা কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

মাল্টা কাজের ভিসা একমাসের বেতন কত

মাল্টা কাজের ভিসাতে এক মাসের বেতন একজন কর্মীর এক লক্ষ বিশ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত হয়। একজন কর্মীর দৈনিক আট ঘন্টা করে কাজ করার সময় দেওয়া হয়ে থাকে। এর মধ্যে ওভারটাইমসহ সে যদি ভাল মানের কাজে নিয়োজিত থাকে তাহলে সর্বোচ্চ ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত মাসে অনায়াসে ইনকাম করতে পারবে।

মাল্টা কাজের ভিসাতে বেতনবেতন
রেস্টুরেন্ট কর্মী৮০,০০ থেকে ১ লাখ ২০ হাজার
ইলেক্ট্রিশিয়ান১ লক্ষ ২০ হাজার থেকে দেড় লক্ষ টাকা
মেকানিক্যালএক লক্ষ বিশ হাজার থেকে দুই লক্ষ টাকা
পরিছন্নতা কর্মীআশি হাজার টাকা থেকে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা

মাল্টা নির্ভর করে আপনি কি ধরনের কাজ করছেন এবং ওই কাজের উপর কতটা অভিজ্ঞতা। সেই সাথে অবশ্যই পাল্টাতে কাজ করার জন্য কোন কোন কোম্পানিতে অবশ্যই নির্দিষ্ট একটি হারে বেতন প্রদান করা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে প্রত্যেক বছর এ সমস্ত কর্মীদের কিন্তু বেতন বৃদ্ধি করা হয়।

মাল্টা কাজের ভিসার দাম কত

সরকারিভাবে মাল্টা কাজের ভিসার দাম পরে তিন লক্ষ টাকা থেকে ছয় লক্ষ টাকা পর্যন্ত। এছাড়া বেসরকারি অথবা সরকার নিবন্ধিত এজেন্সি কলার মাধ্যমে যেতে হলে ৮ লক্ষ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত খরচ করা লাগে। আর আপনি যদি নিজে প্রসেস করে যেতে পারেন তাহলে বিমান ভাড়া পাবো ৩ লক্ষ টাকার মধ্যে মাল্টা কাজের ভিসা পাওয়া সম্ভব।

আপনি যদি নিজেই বাংলাদেশ থেকে যেতে চান তাহলে কিন্তু খরচ একটু বেশিই হবে তবে আপনি যদি দেশের বাইরে থেকে মাল্টাতে যেতে চান তাহলে একেবারে খুবই কম খরচে সীমিত মূল্যের মধ্যে আপনারা মাল্টা কাজের ভিসা পেয়ে যাবেন।

আরো পড়ুনঃ  আলবেনিয়া ওয়ার্ক পারমিট চেক-আলবেনিয়া ভিসা চেক

সাধারণত মাল্টাতে যারা কাজের ভিসা নিয়ে যেতে যেয়ে থাকে তাদের অনেক সময় দেশের বাইরে থেকে অনেকেই যায়। যেমন ইন্ডিয়া থেকে অথবা দুবাই মালয়েশিয়া বা অন্যান্য কান্ট্রি গুলা থেকে মাল্টা ভিসা পাওয়া অনেকটাই সহজ। তবে আপনি যদি মাল্টাতে দুবাই অথবা সিঙ্গাপুর মালয়েশিয়া থেকে যেতে চান তাহলে কিন্তু আপনাকে সেই দেশের নিয়ম অনুযায়ী এক বছর অবস্থান করার পরে আপনি অন্যান্য দেশের ভিসা নিতে পারবেন।

এই ক্ষেত্রে দেশের বাইরে থেকে যদি আপনারা মাল্টা কাজের ভিসা সংগ্রহ করতে চান তাহলে কিন্তু আপনাদের খুবই কম মূল্যের মধ্যেই মাল্টা কাজের ভিসা পেয়ে যাবেন। তা জানার জন্য নিচে আরও পড়তে থাকুন।

মাল্টা কাজের ভিসা আবেদন

আপনি যদি বাংলাদেশে থেকে মাল্টা কাজের ভিসা আবেদন করতে চান তাহলে বাংলাদেশ সরকার নিবন্ধিত যে সমস্ত রিকুইটিং এজেন্সি রয়েছে এই এজেন্সি গুলোর মাধ্যমে আপনারা আবেদন করতে পারবেন। বাংলাদেশ সরকার নিবন্ধিত এজেন্সি গুলো মাল্টা এজেন্সি গুলোর সাথে যোগাযোগ করে তারা ওয়ার্ক পারমিট ভিসা সংগ্রহ করে।

মাল্টা বিভিন্ন কোম্পানি যখন বাংলাদেশ এজেন্সি গুলোর মাধ্যমে লোক নিয়োগ দিয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে তারা কিছু পরিমাণ টাকা নিয়ে থাকে এক্ষেত্রে বাংলাদেশ এজেন্সি গুলো নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে থাকে সেই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী আপনারা মাল্টা কাজের ভিসা আবেদন করতে পারবেন।

তবে ওই এজেন্সি গুলো নির্ধারিত একটি কাজের উপর লোক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে থাকে ওই অনুযায়ী দক্ষতা অর্জন করে আপনাদেরকে ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। আপনি কি ধরনের কাজ পারেন এবং কি কাজের জন্য যেতে চাচ্ছেন সেই অনুযায়ী বিজ্ঞপ্তি দেখে আপনাকে মাল্টা কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ  সৌদি আরবের বিমান চলাচলের খবর

নির্দিষ্ট একটি কাজের উপর যদি আপনার দক্ষতা থেকে থাকে তাহলে আপনারা সরাসরি এজেন্সি গুলোর মাধ্যমে যোগাযোগ করে ওই কাজের উপর ভিসা তৈরি করে নিয়ে আপনারা মাল্টাতে যেতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনাদেরকে একটু খরচ করা লাগতে পারে তবে আপনি অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে পরবর্তীতে সেখানে যাওয়া মাত্রই কিন্তু ভালো মানের বেতনে কাজ পেয়ে যাবেন।

মাল্টা কাজের ভিসা
মাল্টা কাজের ভিসা

মাল্টা কাজের ভিসার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

মাল্টা কাজের ভিসা আবেদন করার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র দেখানো লাগে। এক্ষেত্রে আপনি যেই এজেন্সিগুলোর মাধ্যমে যাবেন সেই এজেন্সি কর্তৃক প্রয়োজনীয় কি কি ডকুমেন্ট লাগে সেগুলো অবশ্যই জেনে নিবেন। বিভিন্ন এজেন্সিতে বিভিন্ন ধরনের ডকুমেন্ট চেয়ে থাকে তবে আপনার এজেন্সিতে কি ধরনের কাগজপত্র চাচ্ছে এই জন্য আপনাকে অবশ্যই জেনে নিতে হবে।

সাধারণত যে সমস্ত কাগজপত্র গুলো ইউরোপের দেশগুলোতে লেগে থাকে তা আমরা বিস্তারিতভাবে নিচে তুলে ধরলাম। তবে অবশ্যই মনে রাখবেন এই কাগজপত্র গুলো সঠিক এবং এর ভেজাল হতে হবে কোন ধরনের অবৈধভাবে কাগজপত্র উত্তোলন করা থাকলে তা তারা আপনার ভিসা করা সম্ভব হবে না।

  • ছয় মাসের ভ্যালিড পাসপোর্ট
  • ৪ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
  • এন আইডি কার্ডের ফটোকপি
  • বাবা-মায়ের এনআইডি কার্ডের ফটোকপি
  • বাসার বিদ্যুৎ বিলের ফটোকপি
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  • চেয়ারম্যান কর্তৃক সত্যায়িত সনদ
  • নির্দিষ্ট কাজের উপর দক্ষতা
  • ইংলিশ ভাষা সম্পর্কে অভিজ্ঞতার সনদ
  • শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ

এছাড়া আরো প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্র লেগে থাকে তবে অবশ্যই আপনি আপনার এজেন্সি মাধ্যমে ভালোমতো জেনে নেবেন কি কি কাগজপত্র লাগবে এবং কাগজপত্রগুলোতে কি কি ধরনের তথ্য থাকা লাগবে এই বিষয়টি সুন্দর মতো তাদের মাধ্যমে জেনে নিতে হবে।

মাল্টা কাজের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

মাল্টা কাজের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিপ্রথম পাতা
কাজের স্থানমাল্টা
কাজের নামফুড ডেলিভারি
কাজের সময়আট ঘন্টা
বয়সসীমা২২ থেকে ৩৫
বেতন১ লক্ষ ২৫ হাজার
শিক্ষাগত যোগ্যতাএইচএসসি পাস

উক্ত কাজের জন্য ইংলিশ অভিজ্ঞতা থাকতে হবে পাশাপাশি ফুড ডেলিভারি করার জন্য ড্রাইভিং অথবা সাইকেলিং করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে এক্ষেত্রে আপনারা সরাসরি বাংলাদেশের সরকারি এজেন্সিগুলোর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন বর্তমানে এই নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিটি চলছে।

আরো পড়ুনঃ  ইতালিতে শ্রমিকদের বেতন কত, ইতালিতে বেতন কত

তাছাড়া আরো যারা ইলেকট্রিশিয়ান অথবা অন্যান্য কাজে অভিজ্ঞতা রয়েছেন তারা চাইলেও বর্তমানের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী আবেদন করতে পারবেন এক্ষেত্রে ইলেকট্রিশিয়ানসহ আরো রেস্টুরেন্ট এবং বিভিন্ন কিছু ক্যাটাগরিতে লোক নিয়োগ প্রক্রিয়া চলছে।

মাল্টাতে কাজ পাওয়ার উপায়

আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে অথবা দেশের বাহিরে থেকে মাল্টাতে কাজ পেতে চান তাহলে প্রথম অবস্থায় আপনাকে মাল্টার বিভিন্ন গভমেন্ট জব ওয়েবসাইট গুলোতে অথবা এজেন্সিগুলোতে যোগাযোগ করতে হবে এক্ষেত্রে যে সমস্ত ক্যাটাগরির উপর আপনি দক্ষতা অর্জন করেছেন অথবা নির্দিষ্ট একটি কাজের উপর দক্ষতা অর্জন করেছেন সেটা নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী যখন আপনি আবেদন করবেন।

এক্ষেত্রে আপনারা মাল্টার বিভিন্ন গভমেন্ট জব ওয়েবসাইট রয়েছে এই ওয়েবসাইটগুলোতে নির্দিষ্ট ক্যাটাগরি ধরে সেখানে আবেদন করবেন আবেদন করার সময় আপনার একটি সিভি তৈরি করে এবং প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো সম্পূর্ণ প্রদান করার পরে আপনারা ভিসার জন্য আবেদন করে ফেলুন।

এভাবে আপনারা খুব সহজে মাল্টা কাজের ভিসা পেয়ে যাবেন এক্ষেত্রে আপনাদের খুবই কম খরচের মধ্যে দুই থেকে তিন লক্ষ টাকার মধ্যে আপনাদের মাল্টা যাওয়ার সম্ভাব হবে। তবে আপনি যদি অভিজ্ঞতা না থাকে তাহলে আপনারা সরাসরি এজেন্সির মাধ্যমে যাওয়াই সবথেকে ভালো হবে।

আরো পড়ুনঃ  সৌদি আরবের আল মারাই কোম্পানি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

মাল্টাতে বর্তমানে একেবারে কর্মী সংকর দেখা দিয়েছে তাই বর্তমানে যারা মাল্টা যাওয়ার চেষ্টা করছেন তারা এই সুবর্ণ সুযোগের মধ্যেই করে নিতে পারেন এক্ষেত্রে একেবারে কম খরচে এবং ভালো কাজের উপরে আপনারা মাল্টা যেতে পারবেন এক্ষেত্রে বিস্তারিত ভাবে তথ্য গুলো আরো নিচে পড়তে থাকুন।

সরকারি ভাবে মাল্টা যাওয়া যায়

আপনি যদি সরকারিভাবে পাল্টাতে যেতে চান তাহলে খুব সহজে যেতে পারবেন এক্ষেত্রে একেবারে দুই থেকে তিন লক্ষ টাকার মধ্যেও কিন্তু মাল্টাতে সরকারিভাবে যাওয়া যায়। মাল্টাতে সরকারিভাবে যাওয়ার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট একটি কাজের উপর অভিজ্ঞতা অর্জন করে বোয়েসেল অথবা সরকার নিবন্ধিত আরো এজেন্সি রয়েছে এই এজেন্সি গুলোর মাধ্যমে আপনারা ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

তবে বর্তমানে যে সমস্ত কাজের অভিজ্ঞতা চাওয়া হয়ে থাকে সেই অভিজ্ঞতা অবশ্যই আপনাকে অর্জন করে তারপরে ভিসার জন্য আবেদন করতে হবে। এক্ষেত্রে হোটেল অথবা রেস্টুরেন্ট কাজের জন্য বিভিন্ন ধরনের রিকোয়ারমেন্ট গুলো দেওয়া থাকে এই রিকোয়ারমেন্ট গুলোর মাধ্যমে আপনাদেরকে জেনে আবেদন করতে হবে।

দেশের বাহিরে থেকে মাল্টাতে যাওয়া অনেকটাই সহজ তবে এক্ষেত্রে আপনাকে প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য দেখানো লাগে যেমন ব্যাংক স্টেটমেন্ট

বাংলাদেশ থেকে মাল্টা যাওয়ার উপায়

বাংলাদেশ থেকে এখন মাল্টা হাতে খুব সহজে যাওয়া যাচ্ছে তবে এই ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাদেরকে প্রয়োজনীয় কিছু রিকোয়ারমেন্ট এবং তথ্য থাকতে হবে। আপনি যদি সরকারিভাবে যেতে চান তাহলে নির্দিষ্ট একটি কাজের উপর অভিজ্ঞতা আর আপনি যদি বেসরকারিভাবে যেতে চান তাহলে কোন ধরনের অভিজ্ঞতা ছাড়াই ইংলিশ ভাষা শিখে আপনি খুব সহজে যেতে পারবেন।

সরকারি এবং বেসরকারি দুইভাবেই বাংলাদেশ থেকে পাল্টাতে যাওয়া যায় তবে আপনাকে ট্রাভেল ইন্সুরেন্স সহ বেশ কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং ব্যাংক একাউন্ট এর ডিটেলস দেখানো লাগে। এক্ষেত্রে আপনি মাল্টা ভিসা সংগ্রহ করতে পারবেন তাছাড়া মাল্টাতে কিভাবে কাজ করবেন এবং কি কাজে কত বেতন এই সংক্রান্ত আরো তথ্য আমরা বিস্তারিতভাবে তুলে ধরেছি।

পাল্টাতে যাওয়ার জন্য ভাষা অভিজ্ঞতা তেমন একটা বিষয় নাই তবে অবশ্যই আপনাকে ইংলিশ জানতে হবে এবং সাধারণ কিছু জ্ঞান থাকতে হবে

বর্তমানে যারা মাল্টাতে কাজে আছে তারা অনেক সময় এখান থেকে ইউরোপের বিভিন্ন দেশগুলোতে যাওয়ার চেষ্টা করে এক্ষেত্রে খুব সহজেও কিন্তু ঐ সমস্ত দেশগুলোতে যাওয়া যায়। আপনি যদি এক থেকে দুই বছর পাল্টাতে অবস্থান করতে পারেন এবং সেখানকার একটি রেসিডেন্সি আপনি সংগ্রহ করতে পারলেই ইউরোপের অন্যান্য দেশে কাজের ভিসা নিয়ে যেতে পারবেন।

মাল্টা রেস্টুরেন্ট কর্মী নিয়োগ

মাল্টা রেস্টুরেন্ট কর্মী নিয়োগপ্রথম পাতা
কাজের স্থানসেন্ট পলবে
কাজের নামরেস্টুরেন্ট কর্মী
কাজের বেতন১ লাখ ১০ হাজার
কাজের সময়আট ঘন্টা
রেস্টুরেন্টের নামথাইসিলি
আবেদনবিজ্ঞপ্তিতে
বয়সসীমা২২ থেকে ৩৫

মাল্টা একটি টুরিস্ট দেশ হওয়ার কারণে সেখানে বিভিন্ন দেশ থেকে প্রতিনিয়ত সেখানে ভ্রমণ করতে আসে। তাই আগের তুলনাই মাল্টাতে রেস্টুরেন্ট কর্মীদের নিয়োগ প্রক্রিয়া বেশি চলছে। এক্ষেত্রে রেস্টুরেন্টগুলোতে একেবারেই কর্মী সংকট থাকার কারণেই সেখানে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ পাচ্ছে।

আরো পড়ুনঃ  মাল্টা কাজের ভিসা একমাসের বেতন কত ২০২৩

বর্তমানে যারা রেস্টুরেন্ট কর্মী হিসেবে মাল্টাতে যেতে চাচ্ছেন তাদের কিন্তু এবারে সুবর্ণ একটি সুযোগ রয়েছে তাই খুব সহজেই আপনারা রেস্টুরেন্ট কাজের উপর মাল্টাতে গিয়ে কাজে নিয়োজিত হতে পারবেন।

মাল্টা কাজের ভিসা অনলাইনে আবেদন করুন

মাল্টা কাজের ভিসা অনলাইনে আবেদন করার জন্য অবশ্যই আপনাকে নির্দিষ্ট একটি কাজের উপর সিভি তৈরি করতে হবে প্রথম অবস্থায়। সিভি তৈরি করার পরে মালটার যে সমস্ত জব এজেন্সি গুলো রয়েছে ওই জব এজেন্সিগুলোতে আপনার সিভি জমা দিয়ে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করুন। আবেদন করার সময় আপনার প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো ভালো মতো সংযোজন করতে হবে।

তবে প্রথম অবস্থায় আপনার যে বিষয়ে কাজে এক্সপার্ট আপনি সেই কাজের উপর একটি জব খুঁজে বের করতে হবে এবং তাদের রিকোয়ারমেন্ট গুলো কি কি আছে সে রিকোয়ারমেন্ট গুলো দেখে প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো সংযোজন করে আবেদন ফরম সম্পূর্ণভাবে পূরণ করে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করে ফেলুন।

মাল্টা কাজের ভিসা নিয়ে সতর্কতা

অনেকেই আছে যারা কিনা আপনাকে লোভ দেখিয়ে অবৈধ পথে মাল্টাতে যাওয়ার পরামর্শ দিবে। তবে অবশ্যই আপনারা এই সমস্ত পথে পা বাড়াবেন না। অনেক সময় নদীপথে অথবা বিভিন্ন চোরাই পথে যাওয়ার কারণে অনেকেই জীবন হারিয়ে ফেলে। তাই অবৈধ পথে যাওয়ার থেকে স্বল্প পরিমাণ কিছু টাকা খরচ করে বৈধ পথে মাল্টা যাওয়ার সবথেকে ভালো।

আরো পড়ুনঃ  বিদেশ যেতে মেডিকেল টেস্ট কোথায় করা হয় দেখুন

আবার অনেকে এজেন্সি রয়েছে যারা কিনা আপনার কাছে জাল ভিসা তৈরি করেও কিন্তু মাল্টাতে পাঠাতে পারে এক্ষেত্রে অনেক সময় এই ভিসা বাতিল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে তাই অবশ্যই অনলাইনের মাধ্যমে সেটি চেক করে যাচাই-বাছাই করে অথবা আপনার কোন এজেন্সির মাধ্যমে যোগাযোগ করে ভিসা ভালো মতো চেক করে তারপরে পাল্টাতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিবেন।

মাল্টা কাজের ভিসা নিয়ে প্রশ্ন এবং উত্তর

মাল্টা ভিসা বন্ধ নাকি খোলা?

মাল্টার যাবতীয় ভিসা কার্যক্রম এখন পর্যন্ত চালু আছে। মাল্টাতে কাজের ভিসা এবং মাল্টাতে টুরিস্ট ভিসা নিয়ে যাওয়া যাচ্ছে। শুধুমাত্র করোনার সময় এই মাল্টা কাজের ভিসা সহ যাবতীয় ভিসা বন্ধ ছিল।

মাল্টা এম্বাসি বাংলাদেশ কবে খুলবে

মাল্টা এম্বাসি বাংলাদেশ কবে খুলবে এই বিষয়ে এখনও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না তবে মাল্টা কাজের ভিসা আবেদন করার ক্ষেত্রে সম্পূর্ণভাবে বুয়েসেলের মাধ্যমে আবেদন করা যাবে।

মাল্টা ভিসা আপডেট

মাল্টাতে এখন যেকোনো ধরনের ভিসা নিয়েই যাওয়া যাচ্ছে। বর্তমানে আগের থেকে মালটা কাজের বিচার দাম এবং অন্যান্য বিচার দাম অনেকটাই বৃদ্ধি পেয়েছে।

2 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *