রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা গেলে করণীয়

রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা গেলে করণীয়
রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা গেলে করণীয়

রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা গেলে করণীয় কি এবং কিভাবে রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা চলে গেলে ওই টাকা ফেরত পাবেন এই নিয়ে আজকে আমরা বিস্তারিতভাবে এই কনটেন্ট এর মধ্যে আলোচনা করেছি। আশা করি এই কন্ঠে একটি সম্পূর্ণ পড়লে আপনারা রকেট একাউন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন এবং কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে সেগুলো জানতে পারবেন তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা গেলে করণীয় কি এই নিয়ে বিস্তারিত।

বাংলাদেশের মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হলো রকেট মোবাইল ব্যাংকিং সেবা। রকেট একাউন্টের মাধ্যমে দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে অনায়াসে যেকোনো মুহূর্তে টাকা পাঠানো যায়। রকেট একাউন্টে টাকা পাঠানোর জন্য অনেক সময় ভুল নাম্বারে টাকা চলে যাই। এ ক্ষেত্রে অনেকেই জানে না তারা কিভাবে রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা চলে গেলে করণীয় কি। আজকে আমরা এই বিষয়টি নিয়ে আপনাদেরকে জানিয়ে দেব।

আপনি যদি কোন ব্যক্তিকে রকেটের মাধ্যমে টাকা পাঠাতে গিয়ে সেটা যদি ভুল নাম্বারে পাঠিয়ে দেন সে ক্ষেত্রে কিন্তু ওই ব্যক্তি আপনাকে টাকা নাও দিতে পারে এজন্য আপনাকে কয়েকটি মাধ্যম ফলো করতে হবে। অথবা ঐ ব্যাক্তি যদি ভালো হয়ে থাকে তাহলে আপনার রকেট একাউন্টে কোন টাকা ফেরত দিতে পারে। আবার অনেকেই খারাপ মানুষ আছে যারা কিনা আপনার টাকা নাও দিতে পারে এজন্য আপনাকে কি কি পদক্ষেপ নিতে হবে সেগুলো নিচে তুলে ধরলাম।

রকেট একাউন্ট নিয়ে বিস্তারিত

বাংলাদেশ মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সেবার দিক দিয়ে রকেট অনেক এগিয়ে। রকেট একাউন্টের মাধ্যমে দেশের এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় খুব সহজেই দ্রুত টাকা টান্সফার করা যায়। আর টাকা টান্সফার করার ক্ষেত্রে অনেক সময় ভুল নাম্বারে টাকা চলে যাই। এ ক্ষেত্রে অনেকেই টাকা দিয়ে দেয় আবার অনেকেই টাকা দেয় না। তাই যারা আপনার ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া টাকা যদি না ফেরত দেয় তাহলে আপনাদের নিচের দেওয়া বিষয়গুলো ফলো করতে হবে তাহলে আপনার রকেট একাউন্টে ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া টাকা ফেরত পাবেন।

রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা গেলে করণীয়

রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা চলে গেলে তাৎক্ষণিকভাবে কাস্টমার কেয়ারের 16216 এই নাম্বারে ফোন করে জানিয়ে দিতে হবে। কাস্টমার কেয়ারে কল দিয়ে আপনার রকেটের ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া টাকার বিষয়টি তাদেরকে নিশ্চিত করুন। এরপর যেই ভুল নাম্বারে টাকা চলে গেছে তার সাথে যোগাযোগ করে টাকা ফেরত পাওয়ার জন্য রিকোয়েস্ট করুন। সেই ব্যক্তি যদি টাকা ফেরত দিতে না চায় তাহলে থানায় গিয়ে জিডি করে নিকটস্থ রকেট কাস্টমার কেয়ারে জিডির কপি নিয়ে চলে যান। পরবর্তীতে রকেট কাস্টমার কেয়ার ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া টাকা পাওয়া ওই ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করে আপনার টাকা দেওয়ার চেষ্টা করবে।

এই ক্ষেত্রে ওই ব্যক্তি যদি টাকা দিতে না চায় তাহলে রকেট কাস্টমার কেয়ার প্রতিনিধির আসে টাকার প্রমাণ চাইবে সেই টাকার প্রমাণ যদি ওই ব্যক্তি দিতে না পারে তাহলে আপনার টাকা আপনাকে ফেরত দিয়ে দিবে। তার পরেও যদি ওই ব্যক্তি টাকা দিতে না রাজি হয় তাহলে তার নামে মামলা হয়ে যাবে। এই মামলা প্রসেস সম্পূর্ণটা রকেট কর্তৃপক্ষ পরিচালনা করবে এক্ষেত্রে আপনার তেমন কোনো ঝামেলার মধ্যে পড়তে হবে না। তাই কোনো ব্যক্তির যদি ভুল নাম্বারে টাকা চলে যায় তাহলে তাৎক্ষণিকভাবে কাস্টমার কেয়ারে ফোন দিয়ে ট্রানজেকশন টি ক্যানসেল করতে বলবেন। এক্ষেত্রে সে যদি টাকা উত্তোলন করে ফেলে তাহলে কিন্তু আপনাকে থানায় গিয়ে জিডি করার মাধ্যমে টাকাটি উদ্ধার করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ  কিভাবে গুগুল এডসেন্স দ্রুত এপ্রুভাল পাওয়া যায় ২০২১ [ডিসেম্বর]

রকেটে যেকোনো সময় টাকা ট্রানজেকশন করার ক্ষেত্রে অবশ্যই সাবধানতা অবলম্বন করা জরুরী। কোন ব্যক্তি যদি রকেটে টাকা একই স্থান থেকে অন্য স্থানে পাঠানোর চিন্তাভাবনা করে থাকে তাহলে অবশ্যই তার নাম্বারটি বারবার যাচাই-বাছাই করে পাঠাতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি যদি ভুল নাম্বারে টাকা পাঠিয়ে থাকেন তাহলে আপনাকে একটা মেসেজ বা ট্রানজেকশন আইডি সংগ্রহ করে রাখতে হবে তা না হলে আপনি ভুল নাম্বারে টাকা চলে গেলে ফেরত পাবেন না। এবং আপনি যেই ভুল নাম্বারে টাকা পাঠিয়েছেন সেই নাম্বারটি অবশ্যই সংগ্রহ করে রাখতে হবে। পরবর্তীতে ওই নাম্বারটি মামলা করার জন্য অথবা রকেট কাস্টমার কেয়ারে জানানোর জন্য লাগবে।

রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা পাঠানোর কারণ

অনেক সময় আমরা না দেখেই বা নাম্বারটি ভালোমতো যাচাই বাছাই না করেই টাকা পাঠিয়ে দিয়ে থাকি অথবা টাকার অংক কত পাঠাচ্ছেন সেই বিষয়টিও ভালোমতো ফলো করি না। এই কারণে অনেকেই বেশি পরিমাণ টাকা দিয়ে থাকে অথবা ভুল নাম্বারে টাকা পাঠিয়ে থাকে। তাই এই ক্ষেত্রে আমাদেরকে রকেট কাস্টমার কেয়ারের হেল্প নিতে হবে। অথবা ওই ব্যক্তি যদি আপনার বাড়তি টাকা না দেয় অথবা আপনার ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া টাকা যদি না দেয় তাহলে সরাসরি থানায় গিয়ে জিডি করে নিতে হবে।

উপরোক্ত এই বিষয়গুলো যদি আপনারা ফলো করে রকেটে টাকা পাঠান তাহলে কোন ধরনের সমস্যা না হওয়ার কথা। তার পরেও যদি কোন ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে এবং রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা চলে যাই তাহলে আপনারা উপরোক্ত পদ্ধতি ফলো করে খুব সহজেই আপনার ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া টাকা ফেরত নিয়ে আসতে পারবেন। এক্ষেত্রে তেমন কোনো খরচ আপনাকে বহন করা লাগবেনা সম্পূর্ণটাই রকেট প্রতিনিধিরা এই বিষয়টি দেখভাল করবে শুধুমাত্র আপনাকে জিডি করে কাস্টমার কেয়ারে সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

তবে এক্ষেত্রে আপনার নিকটস্থ কাস্টমার কেয়ারে যাওয়ার আগে আপনি যে নাম্বারটি ব্যবহার করেছেন এবং কোন ধরনের মেসেজ বা কোন ফোনালাপ যদি থাকে সেই বিষয়টি তাদেরকে নিশ্চিত করতে হবে এক্ষেত্রে ওই ব্যক্তির তথ্য পাওয়া অনেকটা সহজ হবে পাশাপাশি সেই নাম্বারটি যদি আপনি দিয়ে থাকেন সেটার মাধ্যমে ওই ব্যক্তির ঠিকানা সহ অন্যান্য বিষয় তারা জানতে পারবে কারণ প্রত্যেকটি রকেট একাউন্ট খোলার সময় এনআইডি কার্ড দিয়েই রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হয়।

আরো পড়ুনঃ  ফেসবুক ভিডিও ভাইরাল করার উপায় ( গোপন টিপস )

ভুল নাম্বারে যদি টাকা চলে যাই তাহলে ওই ব্যক্তি যদি ফেরত না দেয় তাহলে তার নাম্বারটি এনআইডি কার্ড দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা আছে সেই ব্যক্তির নামে মামলা হয়ে যাবে। পরবর্তীতে মামলার মাধ্যমে ওই ব্যক্তির কাছে আপনার ভুল নাম্বারে চলে যাওয়া টাকা যেকোনো মূল্যে ফেরত নেওয়া হবে। তাই যদি আপনার ভুল ভাবে রকেট নাম্বারে টাকা চলে যাই তাহলে অবশ্যই তাৎক্ষণিকভাবে তাকে রিকোয়েস্ট করবেন সে যদি না দেয় তাহলে থানায় গিয়ে সরাসরি জিডি করে রকেট কাস্টমার কেয়ারে চলে যান।

রকেটে টাকা পাঠানোর আগে সর্তকতা

রকেটে টাকা পাঠানোর আগে অবশ্যই সর্তকতা জরুরি তা না হলে আপনার মূল্যবান অর্জিত টাকা অন্য কারও হাতে চলে যেতে পারে। তাই চেষ্টা করবেন রকেটে টাকা পাঠানোর আগে বিষয়টি ভালমতো খেয়াল করার তা না হলে আপনার বড় ধরনের ক্ষতির মধ্যে পড়তে পারেন। বিকাশ একাউন্টের সতর্কতা স্বরূপ কিছু লিস্ট আকারে তুলে ধরেছি যা আপনাদের জানা জরুরী।

  • রকেটে এই নাম্বারে টাকা পাঠাবেন তা যাচাই বাছাই করুন
  • টাকা পাঠানোর আগে ওই ব্যক্তির সাথে নাম্বার নিশ্চিত করে নিন
  • টাকা পাঠানোর পরে পুনরায় ফোন দিয়ে নিশ্চিত হোন
  • কত টাকা পাঠাচ্ছেন সে বিষয়টি ভালোমতো দেখে নিবেন
  • টাকা পাঠানোর পর এই মেসেজটি সংগ্রহ করে রাখুন
  • টাকা পাঠানোর পর ট্রানজেকশন আইডি কাউকে শেয়ার করবেন না
  • কমপক্ষে দুই থেকে তিনবার নাম্বারটি যাচাই করুন
  • অ্যাপস এর মাধ্যমে টাকা পাঠানোর সময় তার নামটি অবশ্যই দেখে নিবেন
  • অধিক পরিমাণ টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে এনআইডি কার্ড নেওয়ার চেষ্টা করবেন

রকেট একাউন্ট হ্যাকার হতে সাবধান

রকেট একাউন্টে কোন ধরনের মেসেজ আসলে অথবা কোন ফোন কল আসলে কোন কোড অথবা আপনার পাসওয়ার্ড জানতে চাইলে কখনোই দিবেন না কেননা রকেট কাস্টমার কেয়ার থেকে কখনোই আপনাকে পাসওয়ার্ড অথবা ওটিপি কোড সম্পর্কে জানতে চাইবে না। তাই অবশ্যই কোনো ব্যক্তির সাথে রকেট একাউন্টের তথ্য শেয়ার করবেন না তা না হলে আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে যেতে পারে এবং আপনার টাকা গুলো সে উঠিয়ে নিতে পারে।

এক্ষেত্রে কোনো ব্যাক্তি যদি আপনাকে অন্যান্য নাম্বার থেকে আপনার পাসওয়ার্ড জানতে চাই অথবা আপনার একাউন্টে প্রবলেম হয়েছে ঠিক করে দেবে বলে তার আপনাকে ফোন করে তাহলে অবশ্যই রকেট কাস্টমার কেয়ারে ফোন দিয়ে তাদেরকে জানিয়ে দিন যে এই নাম্বার থেকে আমাকে প্রতিনিয়ত ফোন করছে এবং তারা রকেট একাউন্ট সম্পর্কে তথ্য জানতে চাইছে অথবা আপনার একাউন্ট ব্লক হয়েছে বলে তারা জানাচ্ছে এটি জানানোর পরে রকেট কাস্টমার কেয়ার সেই ব্যক্তির নামে ব্যবস্থা নিবে।

আরো পড়ুনঃ  কোন মোবাইলের ক্যামেরা সবচেয়ে ভালো ২০২২

তাই কোন ব্যক্তি যদি ভুল নাম্বারে টাকা পাঠিয়ে থাকে অথবা ভুলে কোন তথ্য শেয়ার করে থাকে তাহলে তাৎক্ষণিকভাবে রকেট কাস্টমার কেয়ারে ফোন করে জানিয়ে দিতে হবে যে আমার অ্যাকাউন্টের এই তথ্যটা সে জেনে ফেলেছে অথবা পাসওয়ার্ড জেনে ফেলেছে অথবা ভুলে তার নাম্বারে টাকা চলে গেছে তাহলে তারা তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি দেখে যেকোনো একটি ব্যবস্থা নিতে পারে অথবা তাৎক্ষণিকভাবে আপনার একাউন্ট লক করে দিতে পারে। তাই এই ছিল আজকে আমাদের রকেটে ভুল নাম্বারে টাকা পাঠালে করনীয় কি

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *